চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কুয়েত: ৪৮ লাখ জনসংখ্যার দেশে প্রবাসীদের অ্যাকাউন্ট ৩৪ লাখ

'কুয়েত কোনোভাবেই প্রবাসী প্রধান হতে চায় না'

কুয়েতের প্রধানমন্ত্রী শেখ সাবাহ আল খালিদ আল সাবাহ বলেছেন, কুয়েত কোনোভাবেই প্রবাসী প্রধান হতে চায় না। এদেশে প্রবাসীদের সংখ্যা, জনসংখ্যার সর্বোচ্চ  ৩০ ভাগ হওয়া উচিৎ।

বুধবার দেশটির এক সংবাদপত্রের সাথে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

শেখ সাবাহ আল খালিদ বলেন, কুয়েতে প্রায় ৩৪ লাখ প্রবাসী অ্যাকাউন্ট রয়েছে যেখানে মোট জনসংখ্যাই ৪৮ লাখ। প্রবাসী শ্রমিক এবং কুয়েতের নাগরিকদের মধ্যে ভারসাম্য আনা হবে ভবিষ্যতের বড় চ্যালেঞ্জ।

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্ব বাজার তেলের অতিমন্দার  প্রভাব পড়েছে মধ্যপ্রাচ্যের তেল নির্ভর দেশগুলোতে।

কুয়েতের সাংসদে একটি প্রস্তাবিত নতুন আইন উপস্থাপন করা হয়েছে, যা কাজের ক্ষেত্রে প্রবাসী শ্রমিক এবং কুয়েতের নাগরিকদের মধ্যে ভারসাম্য আনাবে। অনুমোদিত হলে এই আইনের ফলে স্থানীয়দের দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়ে কয়েক লাখ বিদেশী কর্মী কাজ হারাতে পারেন।

বিজ্ঞাপন

ওই আইনে একজন সাংসদ কোটার মাধ্যমে সরকারি কাজে প্রবাসীদের বদলে কুয়েতিদের স্থলাভিষিক্ত করার প্রস্তাব দিয়েছেন। এর ফলে প্রায় লাখ প্রবাসী কুয়েতে সরকারি চাকরি হারাতে পারেন।

প্রস্তাবটিতে জাতীয়তার সাথে আনুপাতিক সীমাবদ্ধতা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, যাতে কুয়েতে কোন দেশের নাগরিক সংখ্যা কুয়েতির সংখ্যার চেয়ে বেশি না হয়। যার ফলে, কুয়েত কাজ করা ভারত, ফিলিপাইন, শ্রীলঙ্কা, মিশর এবং বাংলাদেশের কয়েক লাখ শ্রমিক বিতাড়িত হতে পারেন।

কুয়েতে বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন কর্মীদের বাতিল করা বা বিদ্যমান কর্মীদের নবায়ন বন্ধের পাশাপাশি বিদেশিদের কাছ থেকে চাকরীর আবেদন জমা না নিতে বলা হয়েছে। এই আইন লঙ্ঘনের জন্য প্রস্তাবিত দণ্ড হল, সব্বোর্চ দশ বছরের কারাদণ্ড অথবা, সর্বাধিক এক লাখ দিনার (৩ লাখ ২৩ হাজার ডলার) জরিমানা অথবা, উভয় দণ্ড।

কুয়েতের নাগরিক কর্তৃপক্ষের গত বছরের পরিসংখ্যান অনুসারে, দেশটির জনসংখ্যা ৪৭ লাখ। এর মধ্যে ৩০ শতাংশ নাগরিক এবং ৭০ শতাংশ অভিবাসী।

ইতিমধ্যে, কুয়েত এয়ারওয়েজ করোনাভাইরাস মহামারীজনিত কারণে সৃষ্ট উল্লেখযোগ্য অসুবিধার কারণে ১ হাজার ৫০০ জন প্রবাসী কর্মীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিচ্ছে।