চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কুৎসা রটনাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলেন জায়েদ খান

মিথ্যে ও ভিত্তিহীন সংবাদ প্রচারের অভিযোগ এনে দু-একটি ইউটিউব চ্যানেল ও ভুঁইফোড় অনলাইন পোর্টালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইনের শরণাপন্ন চিত্রনায়ক জায়েদ খান।   

জায়েদের অভিযোগ, ক’দিন পরপর তার বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট কয়েকটি ইউটিউব চ্যানেল ও অনলাইন পোর্টালে বিভিন্ন মিথ্যা সংবাদ প্রচার করা হয়। নানা কুৎসা রটানো হয় তাকে জড়িয়ে। এতে করে বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয় শিল্পী সমিতির এ নেতাকে। সে কারণে এবার ভীষণ চটেছেন এই নায়ক।

বুধবার দুপুরে চ্যানেল আই অনলাইনকে জায়েদ বলেন, বাধ্য হয়ে ভিত্তিহীন খবর প্রচারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলাম।

তিনি জানান, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের এডিসি (ডিবি, সাইবার ক্রাইম) মনিরুল ইসলামের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান জায়েদ।

বিজ্ঞাপন

জায়েদ খান বলেন, ইচ্ছাকৃতভাবেই কয়েকটি ইউটিউব ও ভুঁইফোড় অনলাইন আমার বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন জিনিস প্রচার করে। সে কারণে আমি লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করি। আমার অভিযোগের ভিত্তিতে ডিবি সাইবার ক্রাইম থেকে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করি তাদের ডাকা হয়।

তিনি বলেন, ডিবি কি ব্যবস্থা নেয় দেখার অপেক্ষায় আছি। এর প্রেক্ষিতে ভিত্তিহীন সংবাদ প্রচারকারীদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাও করতে পারি।

জায়েদ খান মনে করেন, ইতিবাচক জিনিসের চেয়ে ভিউ টার্গেট করে নেতিবাচক জিনিস ছড়িয়ে বিভ্রান্ত সৃষ্টি করে কিছু ভুঁইফোড় মিডিয়া। তাছাড়া সরকারিভাবে এসব পোর্টালের কোনো নিবন্ধন নেই। নেই কোনো দায়বদ্ধতা। এ কারণে তিনি কঠোরভাবে ব্যবস্থা নিচ্ছেন।

জায়েদ খান বলেন, এরা গণমাধ্যমকর্মী হিসেবে এফডিসিতে প্রবেশ করে। কিন্তু পেশাগতভাবে সঠিক ও বৈধ কোনো পরিচয়পত্র নেই। এফডিসি কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানাই তারা যেন এ ব্যাপারে কঠোর হন। যাকে তাকে এফডিসিতে প্রবেশের অনুমতি যেন না দেন। আমি মনে করি এতে করে ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে বিশৃঙ্খলা কমে যাবে।

বিজ্ঞাপন