চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কী হিসেবে শ্রীলঙ্কায় যাচ্ছেন জানেন না সুজন!

বাংলাদেশ দলের ভারপ্রাপ্ত কোচ হিসেবে খালেদ মাহমুদ সুজনকে শ্রীলঙ্কায় পাঠাচ্ছে বিসিবি এটা মোটামুটি পরিষ্কার। স্টিভ রোডস চলে যাওয়ার পর থেকে সাবেক এ ক্রিকেটারের অধীনেই অনুশীলন করছে টিম টাইগার্স। তবে বুধবার নিজের অবস্থান নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন সুজন। সঙ্গে জানিয়েছেন, স্বল্প সুযোগটুকুই কাজে লাগাতে চান পুরোপুরি।

শ্রীলঙ্কায় তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ সামনে রেখে সুজনের অধীনে বুধবার আনুষ্ঠানিক অনুশীলন শুরু করেছে বাংলাদেশ দল। বিসিবির একাডেমি মাঠে সংবাদ মাধ্যমের সামনাসামনি হতেই জানালেন, বোর্ড এখন আনুষ্ঠানিকভাবে যোগাযোগ করেনি তার সঙ্গে। কী হিসেবে কাজ করছেন সেটাও নন পরিষ্কার।

বিজ্ঞাপন

‘আমার সঙ্গে কোনো কথাই হয়নি। আমাকে আকরাম ভাই (আকরাম খান, বিসিবির পরিচালক) বলেছে এখন তুই দেখাশোনার দায়িত্বে থাক যেহেতু আমাদের কোচ নেই এখন। কিন্তু বোর্ড এখন পর্যন্ত আমার সঙ্গে অফিসিয়ালি যোগাযোগই করেনি এখন পর্যন্ত।’

‘সবচেয়ে বড় কথা হল, এতদিন পর্যন্ত বাংলাদেশ দলের সঙ্গে আছি। আমার একটাই কথা সবসময় যেন দেশের জন্য কাজ করতে পারি। কিন্তু আমি জানি না এখন পর্যন্ত কী হিসেবে কাজ করছি। হয়তো এই সময়ের মধ্যে (শ্রীলঙ্কা সফরের আগেভাগে) নতুন কোচ পেয়েও যেতে পারি। আপাতত দুই-তিনদিন ট্রেনিং সেশনে কাজ করবো অবশ্যই। শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার আগে পরিষ্কার হওয়া যাবে।’

বিজ্ঞাপন

কয়েকদিন আগেই দীর্ঘমেয়াদে বাংলাদেশ দলের কোচ হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন সুজন। বুধবার সেটা আবারও বললেন। টাইগারদের সঙ্গে লম্বা সময় ধরে কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকায় দায়িত্বটা তার জন্য সহজ হবে বলেই মনে করছেন।

‘স্টিভ রোডস (বাংলাদেশ দলের সদ্য সাবেক কোচ) যখন বাংলাদেশ দলে আসলো তখন কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর ভালো হয়নি। পরে কিন্তু তার অধীনে বাংলাদেশ বেশ কিছু ম্যাচ জিতেছে। একটা কোচের পরিকল্পনা করার জন্য সময়ের প্রয়োজন হয়। যদিও বাংলাদেশ দলের পরিকল্পনা আমি ভালোভাবেই জানি। তবে দীর্ঘমেয়াদে সময় পেলে একজন কোচের জন্য কাজ করতে সহজ হয়।’

ব্যক্তিগত কারণে শ্রীলঙ্কা সফরে থাকছেন না সাকিব আল হাসান। তার অনুপস্থিতিতে দলের ভারসাম্য নিয়ে দুশ্চিন্তায় সুজন। তবে আশা, সাকিবের জায়গায় যে-ই আসুন না কেনো, তিনি সুযোগটা ভালোমতই কাজে লাগাবেন।

‘সাকিব তো সাকিবই। বিশ্বের এক নম্বর অলরাউন্ডার। ওকে না পাওয়াটা মানে দলের ভারসাম্য এদিক-ওদিক হয়ে যাওয়া। সাকিবের জায়গায় যেই আসবে তার জন্য বড় সুযোগ নিজেকে প্রমাণের। তিনে ব্যাটিং করার ভালো সুযোগ থাকবে। তরুণদের জন্য ভালো সুযোগ। ’

বিশ্বকাপ থেকে ফিরেই নতুন লড়াইয়ে নামতে হচ্ছে মাশরাফী বাহিনীকে। যতটুকু বিশ্রাম হয়েছে দলের কাজে লেগেছে বলেই মনে করছেন বাংলাদেশ দলের সাবেক এই অধিনায়ক। তরতাজা হয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ দারুণ লড়াই করবে বলেও আশা তার।