চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী আর নেই

দেশের কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী আর নেই। সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন তিনি। খবরটি চ্যানেল আই অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন তার জামাতা রাজেশ শিকদার।

বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার ভোর ৪টা ২৬ মিনিটে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে মারা যান তিনি।

বিজ্ঞাপন

উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর নেয়া হয়েছিলো দেশের কিংবদন্তি এই সংগীতশিল্পীকে। কিন্তু সুস্থ হয়ে আর প্রিয় জন্মভূমিতে ফেরা হলো না তার। এই আক্ষেপ শোনা গেল জামাতার কণ্ঠেও।

রাজেশ জানান, ভোর সারে চারটায় সুবীর নন্দীর মৃত্যু সংবাদটি ফোনে জানান সিঙ্গাপুরে সুবীর নন্দীর সাথে থাকা রাজেশের স্ত্রী ফাল্গুনী নন্দী।

সুবীর নন্দীর মরদেহ দেশে নিয়ে আসার প্রস্তুতি চলছে, তবে কবে কখন দেশে আসতে পারেন সে বিষয়ে এখনই কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলেও জানান রাজেশ।

৩০ এপ্রিল থেকে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন দেশের বরেণ্য সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী। গত শনিবার থেকেই তার অবস্থা নিয়ে সন্দিহান ছিলো চিকিৎসকরা। সংশয়ে ছিলেন তার পরিবারের সদস্যরাও। কেনোনা, গত দুই দিনে (শনি ও রবিবার) তিনবার হার্ট অ্যাটাক হয় সুবীর নন্দীর।

দুইবার হার্ট অ্যাটাকের পর চারটি রিং পরানো হয়েছিলো সুবীর নন্দীর হার্টে, কিন্তু এরপরেও রবিবার রাতে আবার হার্ট অ্যাটাক করেন তিনি। এরপর চিকিৎসকরাও সুবীর নন্দীর সুস্থতা নিয়ে আশা হারিয়ে ফেলেন।  

রাজেশ জানান, সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকরা তাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন। তবু শেষ পর্যন্ত বাঁচানো গেলো না তাকে। উন্নত চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে নিজের দেশে আর ফিরতে পারলেন না এই সংগীতশিল্পী।

ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন থাকাকালীন গত ৩০ এপ্রিল সুবীর নন্দীকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুর নেওয়া হয়। দীর্ঘদিন ধরে কিডনি ও হার্টের অসুখে ভুগছিলেন তিনি।

১২ এপ্রিল পরিবারের সবাই মিলে মৌলভীবাজারে আত্মীয়ের বাড়িতে যান। সেখানে একটি অনুষ্ঠান ছিল। ১৪ এপ্রিল ঢাকায় ফেরার ট্রেনে ওঠার জন্য বিকেলে মৌলভীবাজার থেকে শ্রীমঙ্গলে আসেন তারা। ট্রেনেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

ভাগ্যক্রমে সেখানে একজন চিকিৎসক থাকায় তার পরামর্শে সুবীর নন্দীকে নিয়ে তাঁরা ঢাকার বিমানবন্দর স্টেশনে নেমে যান। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাত ১১টার দিকে তাঁকে দ্রুত সিএমএইচে নিয়ে যাওয়া হয়।

Bellow Post-Green View