চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কার্লোসের সেরার ধারে কাছেও নেই মেসি-রোনালদো

কে সেরা? ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নাকি লিওনেল মেসি? গত একযুগ এই প্রশ্ন নানা তর্কের খোরাক দিয়েছে, একেকজন একেক উত্তর দিয়ে উসকে দিয়েছেন আগুন। সেই তর্কের ধারে কাছেও গেলেন না ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী তারকা রবের্তো কার্লোস। রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক লেফটব্যাকের চোখে মেসি-রোনালদো কিংবা হালের নেইমার, কেউই সেরা নন!

গত ১২ ব্যালন ডি’অরের ১১টিই ভাগ করেছেন মেসি-রোনালদো। না জিতলেও কাছাকাছি আছেন নেইমার। এরপরও কার্লোসের চোখে তাদের চেয়ে সেরা খেলোয়াড়টি হচ্ছেন ব্রাজিলকে ২০০২ বিশ্বকাপ জেতানো ফরোয়ার্ড ‘দ্য ফেনোমেনন’ রোনাল্ডো।

বিজ্ঞাপন

‘রোনাল্ডো সবসময়ই সেরা। রোনাল্ডোর মতো একজন অবিশ্বাস্য খেলোয়াড় আর কোনোদিনও আসবে না।’ গোল ডটকমকে সাক্ষাৎকারে বলেছেন কার্লোস।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

‘নেইমার, ক্রিস্টিয়ানো কিংবা মেসি; কেউই নয়। রোনাল্ডো ছিল অনন্য। সে ছিল সেরা। আমাদের প্রজন্মের সময় গোল করা ছিল খুবই কঠিন কাজ। বেশিরভাগ খেলাই ছিল শরীরনির্ভর, আক্রমণকারী নিজেকে বাঁচানোর সুযোগ পেত কম। কিন্তু রোনাল্ডো সবকিছু করতে পারত।’

২০০২ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত রিয়াল মাদ্রিদের গ্যালাকটিকোর অংশ ছিলেন রোনাল্ডো ও কার্লোস। ২০০৭ সালে রিয়ালের কোচ ছিলেন ফ্যাবিও ক্যাপোলো। স্কাই ইতালিয়াকে সাক্ষাৎকারে ইতালিয়ান এ কোচও মেনে নিয়েছেন রোনাল্ডোর শ্রেষ্ঠত্ব। একইসঙ্গে জানিয়ে দিয়েছেন ড্রেসিংরুমে সবচেয়ে বেশি ঝামেলাও করতেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার।

‘আমি যাদের কোচিং করিয়েছি তাদের মধ্যে সেরা ছিল রোনাল্ডো। আবার একইসঙ্গে আমাকে সবচেয়ে বেশি ঝামেলায় ফেলেছে সবচেয়ে বেশি সে-ই।’

‘সে সবসময় পার্টি নিয়ে ব্যস্ত থাকত। একদিন রুদ ফন নিস্টলরয় আমাকে বললো, বস ড্রেসিংরুম থেকে মদের গন্ধ আসছে। ২০০৭ সালের জানুয়ারি, যখন রোনালদো রিয়াল ছেড়ে গেল, তখন আমরা জেতা শুরু করলাম। কিন্তু প্রতিভার কথা যদি বলেন, রোনাল্ডোই আমার চোখে সের। কোনো সন্দেহ নেই।’