চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কামারুজ্জামানের সঙ্গে পরিবারের শেষ দেখা

মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল কামারুজ্জামানের সঙ্গে শেষবারের মতো দেখা করেছেন তার স্ত্রী, ছেলে ও মেয়েসহ পরিবারের ১১ জন। সোমবার (৬ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত পৌনে ৮টা পর্যন্ত তারা কামারুজ্জামানের সাথে অবস্থান করেন।

মিথ্যা মামলায় কামারুজ্জামানকে ফাঁসানো হয়েছে এবং তার পরিবার বিচলিত নয় বলে ওইদিন সাক্ষাত শেষে কামারুজ্জামানের ছেলে সাংবাদিকদের জানান। যুদ্ধাপরাধী কামারুজ্জামানের ফাঁসি কার্যকরের আগে শুধু রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন ও স্বজনদের সাথে দেখা করার প্রক্রিয়া বাকি ছিল। রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা করার সিদ্ধান্ত না নেওয়ায় এবং আগেই পরিবারের সাথে দেখা করায় যে কোনো সময় তাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হতে পারে।

সোমবার (৬ এপ্রিল) সকালে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ ফাঁসির রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন খারিজ করে মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন। এজলাসে এসে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘ডিসমিসড’।

রায়ের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম জানিয়েছিলেন, আপিল বিভাগ আবেদনটি খারিজ করে দিয়েছে। এখন মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে আর কোনো বাধা নেই।

Advertisement

জামায়াত নেতা কামারুজ্জামানের মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখে আপিল বিভাগের দেওয়া পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হয় গত ১৮ ফেব্রুয়ারি। আসামীপক্ষ ৫ মার্চ রিভিউ আবেদন করার পর ৯ মার্চ শুনানির জন্য রাখেন আপিল বিভাগ। কিন্তু আসামীপক্ষের সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে ব্যস্ত থাকার কারণ দেখিয়ে সময় চাইলে আপিল বিভাগ তা মঞ্জুর করেন।

১ এপ্রিল আবারও সময় চেয়ে আবেদন করে আসামীপক্ষ। এবার বলা হয় তিনি অসুস্থ। সেসময় আপিল বিভাগের বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী বলেন, অসুস্থতার কথা বলা হলেও খন্দকার মাহবুব হোসেন গণমাধ্যমে সাক্ষাতকার দিচ্ছেন, ৩১ মার্চ রাতে তিনি নিজে তার সাক্ষাতকার দেখেছেন। এই ধরনের আবেদনকে তামাশা উল্লেখ করে আদালতকে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে বলে আসামীপক্ষের আইনজীবীর সমালোচনা করেন বিচারপতি।

তবে রিভিউ আবেদনের শুনানি ৫ এপ্রিল পর্যন্ত মুলতবি করেন আপিল বিভাগ। গতকাল দু’ পক্ষের বক্তব্য শোনার পর আপিল বিভাগ সোমবার (৬ এপ্রিল) আদেশের দিন ঠিক করেন। মামলাটি আপিল বিভাগের ৬ এপ্রিল কার্যতালিকাতেও আসে।

রোববার (৫ এপ্রিল) প্রধান বিচারপতি প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চে রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদনের শুনানি শেষ হয়। এরআগে আসামি ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা আবেদনটির ওপর শুনানিতে অংশ নেন।