চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কাদেরের প্রশ্ন: ‘ওয়েল ডান মেজর ডালিম’ বলা জেনারেল কে?

১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে কারা ছিলো তা জাতির সমানে উন্মোচনের সময় এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন: একজন জেনারেল মেজর ডালিমের সঙ্গে দেখা হওয়ার পর মন্তব্য করেছিলেন ‘ওয়েল ডান মেজর ডালিম’। তিনি কে? তিনি আর কেউ নন জিয়াউর রহমান।

সোমবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনার দাবিতে কানাডার প্রধানমন্ত্রী বরাবর অনলাইনে এক কোটি সাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচি সূচনা করেন ওবায়দুল কাদের। এসময় দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন: এ কথার অর্থ কী? ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে এই জিয়াউর রহমান ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের নিরাপদে বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন কে? তিনি জিয়াউর রহমান। এই খুনীদের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিয়েছিলেন কে? জিয়াউর রহমান।

বিজ্ঞাপন

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন: ১৫ আগস্টের খুনিদের বিচার হবে না এই মর্মে ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স জারি করেছিলেন জিয়াউর রহমান। এই খুনিদের বিচার কাজ বন্ধ করতে পঞ্চম সংশোধনীতে ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স যুক্ত করেছিলেন কে? এই জিয়াউর রহমান। লাখো শহীদের রক্তে অর্জিত সংবিধানে কেন ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স যুক্ত করা হয়েছিল? সেই প্রশ্নের জবাব বিএনপি এখনও দেয়নি।

বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত বিদেশে পালিয়ে থাকা ৬ জনকে দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে তিনি বলেন: বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের বিচার করা হয়েছে। এখনও ৬ জন খুনি বিদেশে পালিয়ে রয়েছে। এর মধ্যে রাশেদ চৌধুরী পালিয়ে আছে যুক্তরাষ্ট্রে। রাজনৈতিক আশ্রয়ে সে সেখানে বসবাস করছে তাকে ফিরিয়ে আনতে ট্রাম্প সরকারের সাথে আলোচনা চলছে। এ বিষয়ে যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র সরকারও আমাদের সহযোগিতা করছে। যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে একটি মামলা করা হয়েছে।

এছাড়া নূর চৌধুরী কানাডায় পালিয়ে আছে। কিন্তু কানাডার আইনে কাউকে মৃত্যুদণ্ড দেয়ার বিধান নেই। আমরা চেষ্টা করছি এই আইন শিথিল করে তাকে দেশে ফিরিয়ে এনে দণ্ড কার্যকর করতে। এ লক্ষ্যে কানাডার আদালতে বাংলাদেশ সরকার একটি মামলাও দায়ের করেছে। পাশাপাশি আলাপ-আলোচনাও অব্যাহত রয়েছে।

বিজ্ঞাপন