চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনা সঙ্কটে একজোটে কাজ করছে বিদ্যানন্দ ও সুহানা-আনিস ফাউন্ডেশন

কোভিড-১৯ মোকাবেলায় বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মোট ২২,০০০ পরিবারকে সাহায্য প্রদানের জন্য বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনকে ১ কোটি ৫ লক্ষ টাকা আর্থিক সহযোগিতা করেছে সুহানা অ্যান্ড আনিস আহমেদ ফাউন্ডেশন (এসএএএফ)।

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সুহানা অ্যন্ড আনিস আহমেদ ফাউন্ডেশনের আর্থিক এই সহযোগিতার ভিত্তিতে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত এলাকার প্রায় ২২,০০০টি পরিবারের কাছে ইতিমধ্যে বিদ্যানন্দের মাধ্যমে খাবার পৌঁছে দেবে। বিদ্যানন্দের মাধ্যমে বাংলাদেশ সামরিক বাহিনী, বিজিবি এবং স্থানীয় সংস্থাগুলোর সহায়তায় এই সংকটকালীন সময়ে প্রতি পরিবারের কাছে মোট ৩ বেলার এই সহযোগিতা পৌঁছে দেবে এসএএএফ। সহযোগিতার এই অর্থের শতকরা ৯০ শতাংশ বিতরণ করা হবে ঢাকার বাইরে, যেখানে থাকবে চাল, ডাল, তেল, আটা, লবণ, সুজি ইত্যাদি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সুহানা অ্যান্ড আনিস আহমেদ ফাউন্ডেশনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং ট্রাস্টি আনিস আহমেদ বলেন- “বর্তমানে দ্বিধাগ্রস্ত, অসহায় এবং আমাদের সবার কাছ থেকে সর্বদিক দিয়ে সহযোগিতাপ্রার্থী দেশের বড় একটি অংশকে সহায়তা প্রদানের এই কার্যক্রমে বিদ্যানন্দের সাথে একত্রিত হয়ে যুক্ত হওয়ার সুযোগটি আমাদের প্রতিষ্ঠানের জন্য অসম্ভব আবেগপূর্ণ একটি ঘটনা।“

বিদ্যানন্দের প্রতিষ্ঠাতা কিশোর কুমার দাশ বলেন, “অর্থকষ্টে যখন হোঁচট খাওয়ার দশা, তখনই এগিয়ে আসেন সুহানা অ্যান্ড আনিস আহমেদ ফাউন্ডেশন। বিশেষ করে, সারাদেশে পৌঁছানোর মতো বড় অনুদান আমাদের তখনো কাছে আসে নি। সুহানা অ্যান্ড আনিস আহমেদ ফাউন্ডেশনের বদৌলতে আমরা ২২,০০০ অভুক্ত পরিবারের মাঝে খাবার পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়েছি। আশা করি এই রমজানেও তারা ঈদের আনন্দ পৌঁছে দিবেন আরো অনেক পরিবারের কাছে।

তবে বিদ্যানন্দের সাথে সুহানা অ্যান্ড আনিস আহমেদ ফাউন্ডেশনের এই পথচলা আজকের নয়। ২০১৯ সালে বিদ্যানন্দের সাথে যুক্ত হয়ে একে একে রাজবাড়ী, রুমা, বান্দরবান এবং রামুতে অবস্থিত চারটি অনাথালয়ে শিশুদের খাদ্যসংস্থান নিশ্চিত করার দায়িত্ব নেয় এসএএএফ। বর্তমানেও বিভিন্ন প্রকল্পে একজোট হয়ে কাজ করছে এই দুটি সংস্থা।