চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনা: প্রিপেইড গ্যাস মিটারে বেড়েছে ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স

গ্রাহকদের জরুরি সেবায় ৫ টিম

করোনাভাইরাস মোকাবেলার জন্য ছুটিকালীন সময়ে প্রিপেইড গ্যাস মিটার গ্রাহকদের জন্য যেকোন জরুরি সেবা দিতে সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবে তিতাস গ্যাসের ৫টি টিম। এছাড়া ২৪ ঘণ্টা হটলাইন নম্বরগুর মাধ্যমেও যোগাযোগ করা যাবে।

এছাড়া ছুটিকালীন বর্তমানের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স ২০০ টাকার জায়গায় বাড়িয়ে ২ হাজার টাকা করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ‘প্রিপেইড গ্যাস মিটার রিচার্জ এবং জরুরি সেবার বিশেষ বিজ্ঞপ্তি’তে এই তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

তিতাস গ্যাস বলেছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে ২৬ মার্চ থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। তবে এ ছুটির আওতার বাইরে রাখা হয়েছে জরুরি সেবা প্রতিষ্ঠানগুলোকে। প্রিপ্রেইড গ্যাস মিটার গ্রাহকদের জরুরি সেবায় নানা উদ্যোগে নিয়েছে তারা।

বিজ্ঞাপন

এতে বলা হয়, তিতাস গ্যাসের সকল প্রিপেইড গ্যাস মিটার ব্যবহারকারী গ্রাহকদের জানানো যাচ্ছে যে, করোনাভাইরাস মোকাবেলার জন্য ছুটিকালীন সময়ে যেকোনো জরুরি সেবার জন্য সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবে ৫টি টিম। এছাড়া ২৪ ঘণ্টা হটলাইন নম্বরগুলোতো রয়েছেই।

টিমগুলোর মধ্য কার্ড হারানোর ক্ষেত্রে তিতাস গ্যাস প্রধান কার্যালয় মো. আবুল কালাম আজাদের (০১৭৩৯৯৮৯৮৬১ ও ০১৬২০০১০৯৬৯) সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

বিশেষ ক্ষেত্রে প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. ফয়জার রহমান (০১৯৩৯৯২১০৪৬), ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মো. সাজ্জাদ হোসেন (০১৯৩৯৯২১০৭২) ও উপ-ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মীর মোবারক হোসেনের (০১৯৫২২৭৭৩৭৯) সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

ছুটিকালীন মিটার কার্ড রিচার্জে জন্য ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের উত্তরা শাখা (জসিমউদ্দিন মোড়), বসুন্ধরা শাখা এবং ইউক্যাশের এজেন্টগুলো খোলা থাকবে।

এছাড়া ছুটিকালীন বর্তমানের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স ২০০ টাকার জায়গায় বাড়িয়ে ২ হাজার টাকা করা হয়েছে বলেও জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে। প্রয়োজনে তিতাস গ্যাসের কল সেন্টারের ১৬৪৯৬ নম্বরে কল করে সহায়তা নেয়া যাবে।