চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনা প্রতিরোধে এক সাথে কাজ করবে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলো

মহামারী করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় একযোগে কাজ করতে ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সদস্য দেশগুলো।

বৃহস্পতিবার থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ডব্লিউএইচও এর ৭৩তম আঞ্চলিক কমিটির অধিবেশনের দ্বিতীয় এবং শেষ দিনে মন্ত্রিপরিষদের গোল টেবিল বৈঠক শেষে এ ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর করা হয়। তবে মহামারীর কারণে এই প্রথমবারের মতো অধিবেশনটি অনলাইনে করা হয়।

বিজ্ঞাপন

মহামারীর সময়ে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহের জন্য আরও ভালো চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ, আঞ্চলিক দায়িত্বশীলতা আরও দৃঢ় করার মাধ্যমে কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে যৌথভাবে লড়াইয়ের সংকল্প করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সদস্য দেশগুলো।

বিজ্ঞাপন

গোলটেবিল চলাকালীন, সমস্ত সদস্য দেশগুলি কোভিড-১৯ এর সময় তাদের বিভিন্ন সাড়া জাগানো পদক্ষেপগুলি অন্যদের সাথে শেয়ার করেন এবং প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা বজায় রাখা এবং মহামারীর কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের পুনরুদ্ধার করার জন্য তাদের প্রচেষ্টার কথা জানিয়েছেন।

ডব্লিউএইচও এর মহাপরিচালক টেড্রস অ্যাডানম গেব্রেয়েসাস বলেন, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের অগ্রাধিকারগুলি আরও ভালভাবে বোঝার জন্য সম্প্রতি ডব্লিউএইচও সমীক্ষা করেছে। এজেন্ডার শীর্ষে অপরিহার্য স্বাস্থ্যসেবা বজায় রাখা হচ্ছে।

সর্বাধিক দুর্বল জনগণসহ সবার জন্য করোনা এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সেবার ক্ষেত্রে  মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যসেবা দিতে সদস্য দেশগুলো একমত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ঘোষণাপত্রে জনস্বাস্থ্য জরুরী পরিস্থিতিতে দেশগুলি প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা এবং জনস্বাস্থ্য কর্মসূচি বজায় রাখা এবং বর্তমান মহামারীটিকে তাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা উন্নত করার সুযোগ হিসাবে ব্যবহার করার জন্য ঘোষণাপত্রে আহ্বান জানানো হয়েছে।

সদস্য দেশগুলি জনস্বাস্থ্যের অগ্রাধিকার প্রদানের সাথে সাথে মহামারী চলাকালীন এবং এর বাইরেও নিরবচ্ছিন্ন পরিষেবাগুলি নিশ্চিত করতে পর্যাপ্ত বাজেট বরাদ্দ করতে সম্মত হয়েছে।

সদস্য দেশগুলি ডিজিটাল প্রযুক্তির সদ্ব্যবহারের মাধ্যমে স্বাস্থ্য তথ্য ব্যবস্থা জোরদার করার মাধ্যমে সময়মতো প্রাদুর্ভাবের প্রতিবেদন এবং নীতিগত সিদ্ধান্তের জন্য তথ্য ভাগ করে নেয়ার সংকল্পের কথা জানিয়েছে।

স্বাস্থ্যকর্মীরা মহামারীটিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেওয়ার সাথে সাথে সদস্য দেশগুলি স্বাস্থ্য পেশাদার এবং অন্যান্য সম্পর্কিত কর্মীদের পেশাগত স্বাস্থ্য, সুরক্ষা এবং সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

১১ সদস্য রাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রীদের সাথে কথা বলার সময় ডব্লিউএইচও এর এ অঞ্চলের প্রধান ডাঃ ক্ষেত্রপাল সিং বলেন, “স্বাস্থ্যকর্মীদের সংক্রমণ ও সহিংসতা থেকে রক্ষা করার জন্য এবং মানসিক স্বাস্থ্য এবং মনো-সামাজিক সহায়তা দেওয়ার জন্য অব্যাহত প্রচেষ্টা চালানো উচিত।”

এ অঞ্চলের সদস্য দেশগুলো কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন, ওষুধ এবং ডায়াগনস্টিকের ন্যায়সঙ্গত বরাদ্দের বিষয়ে বিশ্বব্যাপী আলোচনায় পুরোপুরি জড়িত হতে সম্মত হয়েছে।