চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনা উপসর্গে একদিনে কুমিল্লায় ৭ জনের মৃত্যু

আবুল কাশেম হৃদয়, কুমিল্লা: করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) উপসর্গ নিয়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালের কোভিড-১৯ ইউনিটে একদিনে ৩ নারীসহ সাত জনের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার সকাল থেকে বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা সময়ে হাসপাতালটিতে এদের প্রাণহানি ঘটে।

বিজ্ঞাপন

মারা যাওয়া সাতজনের মধ্যে তিনজনের বাড়িই কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলায়। মৃত বাকি চারজনের মধ্যে দুজনের বাড়ি জেলার দেবীদ্বার উপজেলায়, একজনের বাড়ি মুরাদনগর এবং একজনের বাড়ি সদর উপজেলায়।

বিজ্ঞাপন

কুমেক হাসপাতালের পরিচালক ডা. মুজিবুর রহমান বৃহস্পতিবার সকালে এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, মারা যাওয়া সাতজনের মধ্যে চারজন আইসিইউতে এবং তিন আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

গত ২৪ ঘন্টায় কুমেকে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ৭ জন হলেন- কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার রফিকুল ইসলাম (৬০), একই উপজেলার আবদুল খালেক (৮৫), আইনুন নাহার (৬০), দেবিদ্বার উপজেলার লালু মিয়া (৭০), শাহিনা আক্তার (৫১), মুরাদনগর উপজেলার মারুফা আক্তার (৩৮) এবং কুমিল্লা সদরের শাকপুর এলাকার আবদুল হালিম (৬৪)।

এ নিয়ে গত এক সপ্তাহে (সাতদিন) কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালের কভিড-১৯ ইউনিটে করোনার সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে চলতি মাসের প্রথম ৬ দিনে ২৬ জন এবং গেলো মাসের শেষ দিন (৩১ জুলাই) মারা যান ২জন।

হাসপাতালের তথ্য কেন্দ্র থেকে জানা গেছে, কভিড-১৯ ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১ আগস্ট পাঁচজন, ২ আগস্ট তিনজন, ৩ আগস্ট তিনজন, ৪ আগস্ট চারজন এবং ৫ আগস্ট মারা যান চারজন।

গত ৩ জুন কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে কভিড-১৯ ইউনিট চালু করা হয়। পরদিন ৪ জুলাই থেকে এখানে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও মৃতদের তথ্য প্রকাশ করে আসছে কর্তৃপক্ষ। প্রাথমিকভাবে করোনা ইউনিটে ১০টি আইসিইউ শয্যা ছিলো। পরে যোগ হয় আরো ৮টি।