চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: চিড়িয়াখানার প্রাণীরা একে অন্যের খাবার হবার শঙ্কা

করোনাভাইরাসের ভয়াবহ প্রভাব পড়েছে চিড়িয়াখানার প্রাণীগুলোর ওপর। বেঁচে থাকতে হলে এবং চিড়িয়াখানাকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে সহসাই প্রাণীগুলোকেই একে অন্যের খাবারের জোগান হতে হবে বলে জানিয়েছেন উত্তর জার্মানির এক চিড়িয়াখানা পরিচালক ভেরিনা ক্যাসপারি

কারণ এমন দিনে চিড়িয়াখানাগুলোতে উপচে পড়া ভিড় হওয়ার কথা ছিল। অথচ করোনাভাইরাসের কারণে সাহায্যের হাত বাড়াতে হচ্ছে কর্তৃপক্ষকে।

বিজ্ঞাপন

এমন পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে অতি শ্রীঘই প্রাণীরা খাদ্যের অভাবে একে অন্যকে খেয়ে ফেলার আশঙ্কা রয়েছে বলে জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে ক্যাসপারি বললেন, অন্য প্রাণীদের আহার জোগাতে কিছু প্রাণীকে বলি দেওয়ার বিষয়টি শেষ সমাধান হিসেবে ধরা হলেও, এতেও অর্থনৈতিক সঙ্কট কাটবে না।

তিনি জানান, সীল ও পেঙ্গুইনগুলোকে প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে টাটকা মাছ খেতে দিতে হয়। ‘প্রাণীগুলোকে ক্ষুধায় মরতে থাকা দেখার চেয়ে আমার পক্ষে বলি দিয়ে দেওয়াই বোধহয় বেশি সহনীয়। পরিস্থিতি এতই খারাপ, কিছু প্রাণীকে কেটে অন্য প্রাণীদের খাওয়াতে হবে’।

শুধু করোনাভাইরাসের কারণে ওই চিড়িয়াখানাকে প্রায় ১ লাখ ৭৫ হাজার ইউরো বা ১ কোটি সাড়ে ৬৩ লাখ টাকা লোকসান গুনতে হবে।

এমন পরিস্থিতিতে জনসাধারণের কাছে অর্থসাহায্যের পাশাপাশি সরকারের কাছে ১০ কোটি ইউরো অনুদানের কথা ভাবছেন চিড়িয়াখানা কতৃপক্ষ।