চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনায় আজ ১৮ জনের মৃত্যু

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ৭৯১ জন

দেশে কোভিড-১৯ সংক্রমণের ৫৭৬ তম দিনে ১৮ জনের মৃত্যুতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭ হাজার ৫৯১ জন।আগেরদিন শনাক্তের হার কমে দুই দশমিক ৯০ শতাংশ হলেও আজ তা কিছুটা বেড়ে হয়েছে তিন দশমিক ১৯ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ৭৯১ জন। গত ৫ আগস্ট দেশে সর্বোচ্চ ২৬৪ জন রোগী মারা যায়। গত ২৮ জুলাই সর্বোচ্চ শনাক্ত হয় ১৬ হাজার ২৩০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডা. নাসিমা সুলতানার সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় (অ্যান্টিজেন টেস্টসহ) ২৪ হাজার ৯২৮টি পরীক্ষায় ৭৯১ জন এই ভাইরাসে শনাক্ত হয়েছেন। এই সময়ে পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার তিন দশমিক ১৯ শতাংশ।

তবে শুরু থেকে মোট পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৮৭ শতাংশ।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় এখন পর্যন্ত ৭২ লাখ ২৭ হাজার ৬০৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ২৫ লাখ ৯১ হাজার ৮১৫টি নমুনা। অর্থাৎ মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ৯৮ লাখ ১৯ হাজার ৪১৮টি নমুনা। এর মধ্যে শনাক্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৫৮ হাজার ৭৫৮ জন। তাদের মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় ৮৩৪ জনসহ মোট ১৫ লাখ ১৯ হাজার ৫৮৮ জন সুস্থ হয়েছেন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

গত ২৪ ঘণ্টায় যে ১৮ জন মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের মধ্যে আটজন পুরুষ ও দশজন নারী। তাদের মধ্যে সবাই হাসপাতালে (সরকারিতে ১৬ জন ও বেসরকারিতে দুইজন) মৃত্যু হয়েছে। তারাসহ মৃতের মোট সংখ্যা ২৭ হাজার ৫৯১ জন। মোট শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৭৭ শতাংশ।

এখন পর্যন্ত সরকারি হাসপাতালে মারা গিয়েছেন ২৩ হাজার ৪৬০ জন, যার শতকরা হার ৮৫ দশমিক ০৩ শতাংশ। বেসরকারি হাসপাতালে মারা গিয়েছেন তিন হাজার ৩২৭ জন, যার শতকরা হার ১২ দশমিক ০৬ শতাংশ। বাসায় ৭৭০ জন মারা গিয়েছেন, যার শতকরা হার দুই দশমিক ৭৯। এছাড়াও মৃত অবস্থায় হাসপাতালে এসেছেন ৩৪ জন, যার শতকরা হার দশমিক ১২ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এখন পর্যন্ত ১৭ হাজার ৭০০ জন পুরুষ মারা গেছেন যা মোট মৃত্যুর ৬৪ দশমিক ১৫ শতাংশ এবং নয় হাজার ৮৯১ জন নারী মৃত্যুবরণ করেছেন যা মোট মৃত্যুর ৩৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ১৮ জনের মধ্যে ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব পাঁচজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব দুইজন, ষাটোর্ধ্ব পাঁচজন, সত্তরোর্ধ পাঁচজন।

আর বিভাগওয়ারী হিসাবে ঢাকা বিভাগে সাতজন, চট্টগ্রাম বিভাগে পাঁচজন, রাজশাহী বিভাগে একজন , খুলনা বিভাগে একজন , বরিশাল বিভাগে ৩ জন ও সিলেট বিভাগে ৩ জন।

করোনাভাইরাসে বিশ্বের ২২২টি দেশ ও অঞ্চলে এখন পর্যন্ত ২৩ কোটি ৫৭ লাখেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে মারা গেছেন ৪৮ লাখ ১৭ হাজারের বেশি মানুষ। তবে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ২১ কোটি ২৬ লাখের বেশি।

বিজ্ঞাপন