চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনার দ্বিতীয় ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিল রাশিয়া

প্রাথমিক পরীক্ষায় সফল হওয়ায় করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে রাশিয়া।

দেশটির ওষুধ নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ এই ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিলেও এখন পর্যন্ত শেষ ধাপের পরীক্ষা সম্পন্ন হয়নি।

বিজ্ঞাপন

বুধবার সরকারি এক বৈঠকে নতুন এই ভ্যাকসিনের অনুমোদনের ঘোষণা দিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

বিজ্ঞাপন

দেশটির সাইবেরিয়া অঞ্চলের ভেক্টর ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরা এপিভ্যাককরোনা নামের এ ভ্যাকসিনটি তৈরি করেছে। গত মাসে সাইবেরিয়ায় ১০০ স্বেচ্ছাসেবীর দেহে ভ্যাকসিনটির প্রাথমিক পরীক্ষা চালানো হয়।

তবে এ পরীক্ষার ফল এখনও প্রকাশ করা হয়নি। এছাড়া ভ্যাকসিনটির বৃহৎ পরিসরে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষাও শেষ হয়নি।

বিজ্ঞাপন

সরকারি টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে পুতিন বলেন, আমাদের প্রথম এবং দ্বিতীয় ভ্যাকসিনের উৎপাদন বৃদ্ধি করা দরকার। আমাদের বিদেশি অংশীদারদের সঙ্গে পারস্পরিক সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছি। বিদেশে আমাদের ভ্যাকসিনের প্রচার চালানো হবে।

পেপটাইড-ভিত্তিক রাশিয়ার দ্বিতীয় এই ভ্যাকসিন প্ল্যাসেবো নিয়ন্ত্রিত উপায়ে গত মাসে সাইবেরিয়ার নোভোসিবিরস্কে ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী একশ স্বেচ্ছাসেবীর দেহে পরীক্ষা চালানো হয়।

এর আগে, গত আগস্টে মস্কোর গামালিয়া ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীদের তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন স্পুটনিক-৫ দেশটিতে ব্যবহারের জন্য অনুমোদন পায়। যদিও এই ভ্যাকসিনের শেষ ধাপের পরীক্ষা এখনও শেষ হয়নি। বর্তমানে মস্কোতে ৪০ হাজার স্বেচ্ছাসেবীর দেহে ভ্যাকসিনটির তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা চলমান রয়েছে।

নতুন ভ্যাকসিন এপিভ্যাককরোনার বৃহৎ পরিসরের মানবদেহে পরীক্ষা আগামী নভেম্বর অথবা ডিসেম্বরে শুরু হতে পারে বলে জানিয়েছে রুশ সংবাদসংস্থা তাস। দেশটির আরেক সংবাদসংস্থা ইন্টারফ্যাক্স বলছে, এই পরীক্ষায় ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবী অংশ নিতে পারেন বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে; যাদের প্রথম পাঁচ হাজার সাইবেরিয়ার বাসিন্দা।

রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত ১৩ লাখ ৪০ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। বিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যায় চতুর্থ স্থানে রয়েছে রাশিয়া।