চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনার দুঃসময়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের জন্য চালু হলো ‘দীক্ষা’

মহামারি করোনাভাইরাসের কবলে পড়ে সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশের শিক্ষা কার্যক্রমও বন্ধ। লাখ লাখ শিক্ষার্থী পার করছে অনিশ্চিত সময়। অনেকের শিক্ষাজীবন ধ্বংসের পথে, অনেকে ঝরে পড়ছে স্কুল থেকে। এমন দুঃসময়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অনলাইনে শিক্ষা সহযোগিতা দিতে যাত্রা শুরু করেছে ‘দীক্ষা’ নামক ভার্চুয়াল শিক্ষামূলক টিউটরিং প্লাটফর্ম।

সম্প্রতি অনলাইনে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এর শুভ সূচনার ঘোষণা দেন নারী উদ্যোক্তা ও দীক্ষার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রিনা খানম।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এসময় তিনি বলেন, করোনাকালীন এই সময়ে আমরা সবাই এখন পরিচিত অনলাইন ক্লাসের সাথে। ইউনিভার্সিটি থেকে স্কুল সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই অনলাইন লার্নিং প্ল্যাটফর্ম এখন অনেক জনপ্রিয়। দীক্ষা সেরকমই একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম। দীক্ষা আমাদের দেশে তৈরি প্রথম অনলাইন ভার্চুয়াল ক্লাসরুম। ভাবলাম অনেক কিছুই তো আজকাল অনলাইনে হচ্ছে। তাহলে টিউশনও হয়তো অনলাইনে করা যাবে। টিউশন নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করতে করতে দেখলাম অনেক উন্নত দেশে এখন অনলাইন টিউশন বেশ জনপ্রিয়। এতে করে টিচার বা স্টুডেন্টকে কোথাও যাওয়ার দরকার নেই। যে যার বাসায় থেকে যেকোন সুবিধাজনক সময়ে পড়তে পারে।

বিজ্ঞাপন

দীক্ষার সঙ্গে যুক্ত আছেন ৪৫০০ এর বেশি শিক্ষক, যারা চেষ্টা করে যাচ্ছেন এই কঠিন সময়ে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদেরকে অনলাইন সাপোর্ট দিয়ে যাওয়ার জন্য। প্রতিষ্ঠানটি শিক্ষার্থীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করা এবং তাদের পড়ানোর জন্য ব্যবস্থা করে দিচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীরা যেমন পড়ালেখায় সম্পৃক্ত থাকতে পারছে, তেমনি আবার অর্থনৈতিক সংকটে থাকা শিক্ষকরাও একটা বাড়তি আয়ের সুযোগ পাচ্ছেন, যারা মূলত বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজের শিক্ষার্থী। এমনকি তাদের অনেক শিক্ষক অনলাইনে দেশের বাইরেও পড়াচ্ছেন, যার মাধ্যমে দেশে আসছে বৈদেশিক মুদ্রা।

প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে সম্পৃক্তরা বলছেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার জন্য প্রয়োজন ডিজিটাল শিক্ষাব্যবস্থা। এক্ষেত্রে দীক্ষা ভার্চুয়াল ক্লাসরুম হতে পারে একটি অন্যতম মাইলফলক। যে কেউ শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা করতে ও যাবতীয় তথ্য পেতে দীক্ষার ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে পারেন http://www.dikkha.com