চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনার দুঃসময়ে মানসিক স্বাস্থ্যসেবায় তরুণদের সংগঠন ‘অ্যাকশনিস্ট’

বিশ্ব মহামারী করোনার দুঃসময়ে অনেকে অনেকভাবে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। মানসিক স্বাস্থ্যসেবা নিয়েও দাঁড়িয়েছে নানাভাবে। তার মধ্যে তরুণদের সংগঠন অ্যাকশনিস্ট (ACTIONISTS) উল্লেখযোগ্য।

দীর্ঘ লকডাউনের কবলে পড়ে ঘরে বসে কাটিয়ে মানুষের মানসিক স্বাস্থ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। এমন কঠিন সময়ে প্রয়োজন পড়ে মানসিকভাবে সচেতনতা তৈরি করা৷ দীর্ঘদিন যাবত মানসিক স্বাস্থ্য সেবা ও সচেতনতা নিয়ে কাজ করে আসা এক দল তরুণ দ্বারা পরিচালিত মানবিক সংগঠন অ্যাকশনিস্ট সেই গুরুত্ব অনুধাবন করেই তাদের উদ্যোগ গ্রহণ করে।

বিজ্ঞাপন

মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে ব্যক্তিগত উদাসীনতা, পারিবারিক ও সামাজিক সকল ট্যাবু ভেঙ্গে দিতে ও চলমান সেবাকে আরও প্রসারিত এবং সহজলভ্য করতে সংগঠনটি ১ সেপ্টেম্বর চালু করে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা প্রজেক্ট “মনোধ্বনি।

বিজ্ঞাপন

১৫ জন সাইকোলজিস্ট, পাঁচজন সাইকিয়াট্রিস্ট ও পাঁচজন টেলিকাউন্সিলরের একটি সমন্বিত দল সংগঠনটির মাধ্যম সম্পুর্ণ বিনামূল্যে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা দান করছে হটলাইনের মাধ্যমে।

বিজ্ঞাপন

সমাজের মানুষগুলোকে পাঁচটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করে এই হটলাইন সেবা প্রদান করে যাচ্ছে অ্যাকশনিস্ট, যেমন-
-স্নাতক ও স্নাতকোত্তর (অর্থাৎ এইচএসসি পাশের পর থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত) পর্যায়ে অধ্যায়নরত বাংলাদেশের যেকোনো প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী,
-নারী ( যাদের বয়স ১৫ থেকে ৩৫)
-করোনার সময়ে যারা ফ্রন্টলাইনে থেকে সেবা দিচ্ছেন সেসব ফ্রন্টলাইন যোদ্ধা (ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ, সাংবাদিক, এছাড়াও সকল ফ্রন্টলাইন যোদ্ধা) ও তাদের পরিবারের সদস্যবৃন্দ।
-কর্মজীবী নারী ও পুরুষ
এবং
-প্রবাসী বাংলাদেশি ( অর্থাৎ প্রবাসী শ্রমিক ও প্রবাসী শিক্ষার্থী)।

পাঁচ ধরনের মানুষকে সেবার আওতায় আনা হলেও আওতার বাইরের যে কোন মানুষকে সেবা প্রদান করতে সচেষ্ট থাকার ব্যাপারে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ অ্যাকশনিস্ট। হটলাইন ছাড়াও নিয়মিত তাদের ফেসবুক পেইজে ( Facebook.com/actionists.org) মেসেজ করে সাইকোলজিস্ট ও সাইকিয়াট্রিস্টের সেবা নেয়া যাবে।

মূলত এটি একটি তিন মাসের প্রজেক্ট। সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকে তাদের হটলাইন নাম্বারে এপোয়েন্টমেন্ট নিয়ে সেবা নেওয়া যাচ্ছে। হটলাইন নাম্বারঃ ০১৩১৭৪৮১২৩৪, এপোয়েন্টমেন্টের জন্য ফোন করতে হবে সকাল দশটা থেকে বিকেল পাঁচটার মধ্যে।

এ বিষয়ে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক আ.ন.ম. ফখরুল আমিন ফরহাদ বলেন, গবেষণায় দেখা গেছে প্রাপ্তবয়স্ক মানসিক রোগীদের মধ্যে ৯২ শতাংশ কোন প্রকার মানসিক স্বাস্থ্য সেবা নেওয়ার ক্ষেত্রে উদাসিন। মানসিক চাপ, উদ্বেগ, দুশ্চিন্তা ও হতাশায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের শারীরিক অসুস্থতার মতো মনের অসুস্থতারও যত্ন নেওয়ার ব্যাপারে সচেতন করার জন্যই আমাদের এই উদ্যোগ। মানসিক স্বাস্থ্য সেবা সহ সমাজের পিছিয়ে পরা গোষ্ঠির যে কোনো প্রকার কঠিন সময়ে সারথি হতে ACTIONISTS সর্বদা বদ্ধপরিকর।