চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: স্পেনে গণপরিবহনে মাস্ক বাধ্যতামূলক

দীর্ঘদিন ধরে চলা কঠিন লকডাউন ধীরে ধীরে শিথিল করলেও সোমবার থেকে গণপরিবহনে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করেছে স্পেন সরকার।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ বলেছেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে ৬০ লাখ মাস্ক বিতরণ করা হবে, বিশেষ করে পরিবহণ চলাচল করে এমন এলাকায় এসব মাস্ক বিতরণ করা হবে। তাছাড়া আরো ৭০ লাখ মাস্ক বিতরণ করা হবে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে।’

বিজ্ঞাপন

প্রায় পৌনে দুই মাস পর গত শনিবার দেশটির পূর্ণবয়স্করা ঘরের বাইরে ব্যায়াম করার অনুমতি পেয়েছে। আর এক সপ্তাহ আগে ১৪ বছর বয়সের নিচের শিশুদেরকে কয়েক ঘণ্টার জন্য বাইরে খেলার অনুমতি দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

ইউরোপের অন্যান্য দেশগুলো থেকেও ধীরে ধীরে লকডাউন শিথিল করা হচ্ছে। যদিও সামাজিক বিচ্ছিন্নতা কঠোরভাবে পালিত হচ্ছে সেসব দেশে। আবার কিছু দেশে দোকান ও গণপরিবহনে মাস্ক পরে থাকতে বলা হচ্ছে।

সানচেজ আরও বলেন, ‘ইউরোপের সবচেয়ে কঠোর লকডাউনের কারণে আত্মত্যাগের পুরস্কার স্পেন এখন পাচ্ছে। করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট ক্ষতি মোকাবেলায় স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে ১৭.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তা দেওয়া হবে।’

বিজ্ঞাপন

এরই মধ্যে মাদ্রিদের বাসিন্দাদের ঘরের বাইরে ব্যায়াম করারও অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলে তারা বেশ আনন্দিত ও মুক্তবোধ করছেন।

বাসিন্দাদের মধ্যে একজন বলেন, ‘এটা শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য খুবই দরকার ছিল।’

গত ১৪ মার্চের পর শুধু খাবার ও ওষুধ কিনতেই ঘরের বাইরে যেতে পেরেছে স্পেনের জনগণ। বাড়ি থেকে কাজ করা সম্ভব না হলে কাজে যেতে পেরেছে কিছু মানুষ। কেউ কেউ তাদের ‍কুকুরকে একটু হাঁটতে নিতেও পেরেছে।

স্পেনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছে ২৫ হাজারের বেশি।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনা ভাইরাস। পরে বিশ্বব্যাপী সেটা মহামারী রূপ ধারণ করে।

বর্তমানে সারাবিশ্বে এই ভাইরাসে আক্রান্ত সাড়ে ৩৪ লাখ ছাড়িয়েছে আর প্রাণ হারিয়েছে ২ লাখ ৪৪ হাজারেরও বেশি মানুষ।