চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: সেনাবাহিনীর কঠোর অবস্থান নিয়ে যা বললেন আইএসপিআর পরিচালক

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার নির্দেশিত সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়টি ‘কঠোরভাবে’ নিশ্চিত করার ঘোষণা দিয়েছে সেনাবাহিনী। সে লক্ষ্যে তারা কাজ করে যাচ্ছে সারাদেশ জুড়ে।

সেনাবাহিনীর ওইসব কর্মকাণ্ড সর্ম্পকে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর)’র পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আব্দুল্লাহ ইবনে জায়েদ বৃহস্পতিবার চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন: সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়ে গত কয়েক দিন লোকজনের মধ্যে একটু শৈথল্য দেখা গেছে। তাই সরকারি নির্দেশনার প্রতি কেউ শৈথল্য প্রদর্শন করলে বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) থেকে নির্দেশনাগুলো কঠোরভাবে মানতে বাধ্য করা হবে। তবে সরকারিভাবে যে সকল জরুরি পরিষেবার কথা বলা হয়েছে তা এই কঠোরতার আওতামুক্ত থাকবে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আইএসপিআর পরিচালক আরো বলেন: এখন স্কুল-কলেজ খোলা নেই। এছাড়া চায়ের দোকানে এখন কারো আড্ডাও দেয়ার কথা না। কিন্তু যদি দেখা যায়, কেউ জটলা করছেন কিংবা কেউ হোম কোয়ারেন্টাইন না মেনে রাস্তায়-বাজারে বসে আড্ডা দিচ্ছেন, যার ফলে অন্যকে অ্যাফেক্টেড করার সম্ভাবনা আছে, সেক্ষেত্রে কঠোরতা অবলম্বন করা হবে। এক্ষেত্রে শৈথল্য প্রদর্শনের কোন সুযোগ নেই।

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন: দেখা গেল একটা রিকশায় তিনজন যাচ্ছেন। এটা তো গা ঘেঁষাঘেঁষির পর্যায়ে চলে যায়। এটা তো আর সামাজিক দূরত্ব বজায় হলো না। তাই এখন রাস্তায় বিভিন্ন পয়েন্টে চেকপোস্ট বসিয়ে চেক করা হচ্ছে।

গত বুধবার (১ এপ্রিল) আইএসপিআর থেকে দেয়া এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “সেনাবাহিনী আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) থেকে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তার অংশ হিসেবে দেশের সকল স্থানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়টি কঠোরভাবে নিশ্চিত করবে। সরকার প্রদত্ত নির্দেশাবলী অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

দেশে ভাইরাস সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে গত ২৬ মার্চ থেকে দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। এইসময়ে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে কাউকে বের না হওয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এছাড়া হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে বিদেশ ফেরতদের। আর সরকারের এই নির্দেশনা বাস্তবায়নে বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা করতে দেশের বিভিন্ন জেলায় সেনাসদস্যরা কাজ করছেন।