চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: সরকারি ওয়েবসাইট থেকে তথ্য মুছে দিলো ব্রাজিল

করোনাভাইরাস নিয়ে কয়েক মাসের তথ্য সরকারি ওয়েবসাইট থেকে মুছে দিয়েছে ব্রাজিল। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দেশটির প্রেসিডেন্টের পদক্ষেপ নিয়ে সমালোচনার মধ্যেই এমন কাজ করা হয়েছে।

সেখানকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা এখন শুধু গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর তথ্য জানাবে। অন্যান্য বেশ কিছু দেশের মতো পুরো সংখ্যাটা বলবে না। ত্রমবর্ধিষ্ণু তথ্যগুলো বর্তমান চিত্রকে প্রতিফলিত করে না বলেই মন্তব্য করেন বলসোনারো।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা ব্রাজিলে। সম্প্রতি অন্যান্য দেশের থেকে খুব বেশি মৃত্যুও ঘটছে সেখানে।

বিজ্ঞাপন

ল্যাটিন আমেরিকার এই দেশটিতে বর্তমানে আক্রান্ত প্রায় সাড়ে ছয় লাখ মানুষ। তবে ধারণা করা হচ্ছে সত্যিকারে সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা আরো বেশি। কারণ দেশটিতে পরীক্ষা কম করা হচ্ছে। এরই মধ্যে প্রাণ হারিয়েছে ৩৫ হাজার মানুষ। সেটা বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দেওয়া লকডাউনের পরামর্শ বাতিল করে খুব সমালোচনার মুখে পড়েন দেশের ডানপন্থী এই নেতা। সম্প্রতি সামাজিক দূরত্বের পরামর্শ না মেনেই প্রতিবাদীদের সমর্থনেও যোগ দেন প্রেসিডেন্ট বলসোনারো।

বিজ্ঞাপন

শনিবার সরকারি ওয়েবসাইট থেকে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত তথ্যাদি সরিয়ে নেয় দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। সেখানে শুধু বলা হয় গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২৭,০৭৫ জন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে আর মৃত্যুবরণ করেছে ৯০৪ জন। আরো উল্লেখ করা হয় ১০,২০৯ জন সুস্থ হয়েছে।

টুইটারে বলসোনারো তথ্যগুলো বর্তমান চিত্র দেখায় না বললেও কেন সেসব তথ্য সরিয়ে ফেলা হয়েছে বা উন্মুক্ত করা হবে না তার কোনো ব্যাখ্যা দেননি। আক্রান্তের তথ্য উন্নয়নে আরো কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেই জানান তিনি।

সাংবাদিক ও কংগ্রেসের সদস্যরা এমন সিদ্ধান্তের প্রবল সমালোচনা করেছেন। গত চারদিন দেশটিতে প্রতিদিন ১০০০ জনেরও বেশি করে মৃত্যুবরণ করার পরেই এই তথ্য সরানোর ঘটনাটি ঘটলো।

বলসোনারো এর আগে করোনাভাইরাসকে ছোট্ট ফ্লুয়ের সঙ্গে তুলনা করে ঝুঁকিগুলোকে গুরুত্বই দেননি। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এই মহামারী মোকাবেলার মতভেদে দুজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা পদত্যাগও করেন।

দেশের অর্থনীতিকে দুর্বল করে দিবে এমন মন্তব্য করে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের দেওয়া লকডাউন পদক্ষেপও তুলে নিতে বলেন তিনি। সরকারের বিরুদ্ধে গিয়ে যেসব গভর্নর ও মেয়র কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছেন তাদের অভিযুক্ত করে তিনি বলেন, বিষয়টি রাজনৈতিক লাভের জন্য ব্যবহার করছে তারা।