চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: লকডাউন হচ্ছে যবিপ্রবি’র প্রশাসনিক ভবন

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (যবিপ্রবি) এর কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারীর করোনাভাইরাস পজিটিভ শনাক্ত হওয়ায় আগামী ২৭ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীর বাধ্যতামূলক করোনা টেস্ট করানো হবে।

সোমবার দুপুরে যবিপ্রবি’র প্রশাসনিক ভবনের সম্মেলন কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও দপ্তর প্রধানদের সঙ্গে এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সভায় যবিপ্রবি উপাচার্যের দপ্তর, পরিচালক (হিসাব)-এর দপ্তর, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের দপ্তরসহ কয়েকটি দপ্তরে বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারীর করোনা আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হয়। উপস্থিত সবাই সব বিভাগ, ইন্সটিটিউট, দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের করোনা পরীক্ষা করার পরামর্শ দেন। এরপর প্রশাসনিক ভবন ২৭ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত লকডাউন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

সভায় জানানো হয়, লকডাউনের সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী তাদের দপ্তর প্রধান কর্তৃক দেওয়া সূচি অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. এম আর খান মেডিকেল সেন্টারে গিয়ে প্রাথমিক স্ক্রিনিং করে জিনোম সেন্টারে গিয়ে নমুনা দিয়ে আসবেন। পরীক্ষা করার পর যারা নেগেটিভ শনাক্ত হবেন, তারা অফিস করবেন। অফিস করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. এম আর খান মেডিকেল সেন্টারের দেওয়া নেগেটিভ সনদ জমা দিতে হবে। আর যারা পজিটিভ শনাক্ত হবেন, তারা বিধি অনুযায়ী মেডিকেল ছুটিতে থাকবেন বলে সভায় জানানো হয়। তবে প্রশাসনিক ভবন লকডাউন থাকলেও যবিপ্রবির জিনোম সেন্টারে কোভিড-১৯ পরীক্ষা যথারীতি চালু থাকবে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন যবিপ্রবির প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন ড. এ এস এম মুজাহিদুল হক, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. সুমন চন্দ্র মোহন্ত, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন ড. মোঃ মেহেদী হাসান, রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ আহসান হাবীব, পরিচালক (হিসাব) মো. জাকির হোসেন, পরিচালক (প. উ.) পরিতোষ কুমার বিশ্বাস, প্রধান প্রকৌশলী হেলাল উদ্দিন পাটোয়ারি, প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. দীপক কুমার মন্ডল প্রমুখ।