চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বান্দরবানে ইউএনও-ওসি ও ৭ চিকিৎসকসহ ৩০ জন কোয়ারেন্টাইনে

বান্দরবান সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়ায় সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসারসহ ৭ জন চিকিৎসক, ১০ জন নার্স, স্টাফ-আয়া ৬ জন এবং থানচি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও), থানচি থানার ওসিসহ ৭ জন ধরে মোট ৩০ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

বান্দরবান সিভিল সার্জন ডা. অংসুই প্রু মারমা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

তাছাড়া বান্দরবান সদর হাসপাতালের পুরুষ ওয়ার্ড, থানচি উপজেলার দুটি বাজার ও থানচি সোনালি ব্যাংক লকডাউন করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সিভিল সার্জন ডা. অংসুই প্রু মারমা বলেন, ‘থানচিতে ২ জন, লামায় ১ জন এবং নাইক্ষ্যংছড়িতে ১ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। তাদের সংস্পর্শে থাকা চিকিৎসক, নার্স, আয়া, ইউএনও, ওসিকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। ইতিমধ্যে আরও অনেকের নমুনা টেস্টের জন্য পাঠানো হয়েছে।’

স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে, মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রামের করোনা পরীক্ষা ল্যাবে থানচি উপজেলার সোনালী ব্যাংকের গার্ড, বড়মদক এলাকার এক বাসিন্দা এবং লামা উপজেলার সদর ইউনিয়নের মেরাখোলা মুসলিম পাড়ার এক নারীর করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়। এর আগে কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ল্যাব টেস্টে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নে তাবলীগ ফেরত একজন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়।

এ নিয়ে জেলায় ৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছে।