চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: দেশে ষাটোর্ধ্ব ১ হাজার ৭৩৫ রোগীর মৃত্যু

করোনাভাইরাস এ আক্রান্ত হয়ে দেশে মারা যাওয়া ৩ হাজার ৬২৫ জন রোগীর মধ্যে ষাটোর্ধ্ব (৬০-১০০ বছর) ১ হাজার ৭৩৫ জন রয়েছেন। আর এ পর্যন্ত মৃতদের মধ্যে পুরুষ দুই হাজার ৮৬৫ জন (৭৯ দশমিক ০৩ শতাংশ) এবং নারী ৭৬০ জন (২০ দশমিক ৯৭ শতাংশ)।

শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহা-পরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, দেশে এখন পর্যন্ত শূন্য থেকে দশ বছরের মধ্যে মারা গেছেন ১৯ জন, যা দশমিক ৫২ শতাংশ। এগারো থেকে বিশ বছরের মধ্যে ৩৪ জন, যা দশমিক ৯৪ শতাংশ। একুশ থেকে ত্রিশ বছরের মধ্যে ৯১ জন, যা ২ দশমিক ৫১ শতাংশ। ত্রিশোর্ধ্ব ২৩০ জন, যা ৬ দশমিক ৩৪ শতাংশ। চল্লিশোর্ধ্ব ৪৯৩ জন, যা ১৩ দশমিক ৬০ শতাংশ। পঞ্চাশোর্ধ্ব ১ হাজার ২৩ জন, যা ২৮ দশমিক ২২ শতাংশ এবং ষাটোর্ধ্ব (৬০-১০০ বছরের) ১ হাজার ৭৩৫ জন, যা ৪৭ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, এদের মধ্যে ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব দুইজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব নয়জন এবং ষাটোর্ধ্ব ২২ জন ছিলেন। ঢাকা বিভাগের ছিলেন ১৬ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের সাত জন, খুলনা বিভাগের সাতজন, রাজশাহী বিভাগের একজন, সিলেট বিভাগের দুইজন এবং রংপুর বিভাগের ছিলেন একজন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ৭৩৪ জনকে। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ২০ হাজার ২০৯ জন। ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড়া পেয়েছেন ২৮৮ জন, এখন পর্যন্ত ছাড়া পেয়েছেন ৪১ হাজার ২৮৪ জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশন করা হয়েছে ৬১ হাজার ৪৯৩ জনকে।

এতে আরও বলা হয়, প্রাতিষ্ঠানিক ও হোম কোয়ারেন্টিন মিলে ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে এক হাজার ৯৫৪ জনকে। কোয়ারেন্টিন থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় ছাড়া পেয়েছেন এক হাজার ৮২৭ জন, এখন পর্যন্ত ছাড়া পেয়েছেন ৪ লাখ ১৩ হাজার ৬৪ জন। এখন পর্যন্ত মোট কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে ৪ লাখ ৬৫ হাজার ৯১৫ জনকে। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৫২ হাজার ৮৫১ জন।