চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নিজ এলাকার দুই হাজার মানুষকে খাদ্যসামগ্রী দিলেন পপি

খুলনা খালিশপুরের মেয়ে চিত্রনায়িকা সাদিকা পারভীন পপি। জনপ্রিয় এ নায়িকা তার নিজ এলাকা খালিশপুর ছাড়াও আশাপাশে প্রায় ২ হাজার অসচ্ছল মানুষকে করোনাভাইরাসের কারণে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলন।

বুধবার বিকেলে খুলনা থেকে চ্যানেল আই অনলাইনকে পপি বলেন, মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) ছিল পহেলা বৈশাখ। বাংলা বছরের শুরুর দিনে তিনি খালিশপুরের প্রায় ১ হাজার অসচ্ছল মানুষকে চাল, ডাল, সাবানসহ অন্যান্য সামগ্রী বিতরণ করেছি। প্রত্যেকেই মাঝে নিরাপদ দূরত্ব বজায় ছিল। এর আগে খুলনার শিববাড়ি মোড়, বিএল কলেজ এলাকা, বৈকালিন এলাকায় সন্ধ্যার পর ঘুরে ঘুরে প্রায় ১ হাজার মানুষকে খাবার দিয়ে সাহায্য করেছি।

বিজ্ঞাপন

তবে পপি এটিকে ত্রাণ নয়, সহায়তাও নয়; বরং ‘রিটার্ন অফ লাভ’ বলছেন। তার ভাষ্য, তারকা হিসেবে সকলের কাছ থেকে পেয়েছি অফুরন্ত ভালোবাসা। এটা হলো তারই যৎসামান্য প্রতিদান দেওয়ার চেষ্টা, যদিও ভালোবাসার কোন প্রতিদান দেওয়া যায় না। সকলকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা। সবাই বাড়িতে থাকুন, নিরাপদ থাকুন এবং পরিবারকেও নিরাপদে রাখুন।

বিজ্ঞাপন

প্রথমে খাবারের সাথে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়েছিলেন পপি। পরে তিনি বললেন, এগুলোর সংকট দেখা দিয়েছে। তবে মানুষকে সচেতন করতে ভুলছি না। পপি বলেন, গত ১৩ মার্চ মা-বাবা, ভাইবোনদের নিয়ে এসেছি। খালিশপুর আমার দাদাবাড়ি। আমরা আসার পরই করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে গেছে। সেজন্য আর ঢাকা ফিরতে পারিনি।

তিনি বলেন, টিভি ফেসবুকে ঢুকলেই দেখছি সারা দুনিয়াতে কীভাবে এই ভাইরাস ছড়িয়েছে। পৃথিবীজুড়ে মানুষের মৃত্যু বাড়ছে। অত্যাধুনিক চিকিৎসাব্যবস্থা সত্ত্বেও ইউরোপ, আমেরিকার মতো দেশগুলো এই ভাইরাসকে রুখে দিতে পারছে না। আমাদের এখানে যে চিকিৎসাব্যবস্থা, তাতে এই মহামারি ছড়িয়ে পড়লেও থামানোর কোনো সুযোগ নেই। এই ভাইরাসে কখন, কীভাবে কে আক্রান্ত হবে, কেউ জানি না। তাই সব দিকনির্দেশনা মেনে ঘরে অবস্থান করতে হবে।