চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: গাড়িতেই বসবাস দুই চিকিৎসকের

করোনাভাইরাস আক্রান্তদের চিকিৎসা দেয়া দুই চিকিৎসক নিজের পরিবারকে এই ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষায় গত কয়েকদিন ধরে বাড়ির বাইরে রাখা গাড়িতে বসবাস করছেন।

ভারতের ভুপালের ওই দুই চিকিৎসক সপ্তাহের প্রত্যেক দিন করোনা সংক্রমিত রোগীর চিকিৎসা করছেন।

বিজ্ঞাপন

শচীন নায়ক এবং শচীন পাতিদার নামের এই দুই চিকিৎসক মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের একটি সরকারি হাসপাতালে কাজ করেন।

বিজ্ঞাপন

হাসপাতালের কাজ শেষে প্রতিদিন তারা পায়ে হেঁটে বাসায় ফেরেন। এরপর বাসার পাশে রাখা গাড়িতে দিনের বাকিটা সময় কাটান। সেই গাড়িতে বিছানার চাদর, পোশাক, ল্যাপটপ এবং ম্যাট্রেস রাখা হয়েছে।

ওই দুই চিকিৎসকের একজন শচীন নায়েকের তিন বছর বয়সী একটি শিশু রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ডিউটি করা শচীন নায়েক বলেন, ‘কয়েক দিনের মধ্যে করোনাভাইরাস মহামারি হয়ে ছড়িয়ে পড়ল। প্রস্তুতির কোনো সময় ছিল না।’

তাকে প্রতিদিন ওই হাসপাতালে অন্তত ১০০ জনের সঙ্গে ওঠাবসা করতে হয়। তাদের নমুনা সংগ্রহ করতে হয়। যেখান থেকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হতে পারে। সে কারণে তিনি পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গাড়িতে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

অ্যানেসথেটিস্ট বিশেষজ্ঞ শচীন পাতিদার। তিনি গত ৩১ মার্চ থেকে গাড়ীতে থাকছেন। গাড়িতে সাবান, ডিওডোরেন্ট, চিরুনি এবং শেভিং কিট রেখেছেন। গাড়ির ব্যাক সিটই এখন তার বিছানা। পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠ সদস্যদের নিয়ে চিন্তিত তিনি।

পরিবারকে রক্ষায় গাড়িতে বসবাস করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই দুই চিকিৎসক প্রশংসা পাচ্ছেন।

মধ্যপ্রদেশে এখন পর্যন্ত ৩৯৭ জন করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন। আর মারা গেছে ২৬ জন মানুষ।