চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: ওয়ারীতে আজ থেকে ২১ দিনের লকডাউন শুরু

রাজধানীর ওয়ারী এলাকায় করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আজ থেকে ২১ দিনের জন্য লকডাউন বাস্তবায়ন করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)।

শনিবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ মো. এমদাদুল হক বিষয়টি চ্যানেল আই অনলাইনকে নিশ্চিত করেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, সরকারি নির্দেশ মোতাবেক ওয়ারীর এক বর্গ কিলোমিটার এলাকায় লকডাউন বাস্তবায়ন করা হয়েছে। লকডাউনে এই এলাকা থেকে কেউ বের হতে বা প্রবেশ করতে পারবে না। এলাকাটির সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অফিস কার্যালয় ২১ দিনের জন্য বন্ধ থাকবে। শুধু মাত্র ওষুধের ফার্মেসি/দোকান ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে। এলাকার বসবাসকারী সকলকে ঘরের ভেতরে থাকতে হবে। লকডাউনে থাকা এলাকার সকল নাগরিকের প্রয়োজনীয় সবকিছু পৌঁছে দেওয়া হবে। নিরাপত্তা পরিস্থিতি নজরদারি ও কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখতে আইনশৃঙ্খলা বাহিরীর সদস্যরা নিয়োজিত থাকবে। লকডাউনের সার্রিক কার্যক্রম মনিটরিংয়ের জন্য ওয়ারী বলধা গার্ডেনে একটি কন্ট্রোলরুম স্থাপন করা হয়েছে।

যদি কেউ লকডাউনের নিয়ম ভঙ্গ করে তবে মোবাইলকোর্টের মাধ্যমে তার বিরুদ্ধে আইনগত কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

ওয়ারীতে ১৭৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। অধিক ঘনবসতি প্রবণ এলাকার মধ্যে ওয়ারী অন্যতম। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে গুরুত্ব ও প্রয়োজন সাপেক্ষে রাজধানীর ঝুঁকিপূর্ণ অন্য সব এলাকাগুলোও লকডাউনের আওতায় পর্যায়ক্রমে আনা হবে। রোগীর নমুন সংগ্রহ ও তার করোনা পরীক্ষা করার জন্য সার্বিক ব্যবস্থা থাকবে। প্রয়োজনীয় অ্যাম্বুলেন্স সুবিধাও রাখা হয়েছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রকাশিত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) ৪১ নম্বর ওয়ার্ড ওয়ারী এলাকা লকডাউনের আওতায় থাকবে- আউটার রোডগুলো হচ্ছে: টিপু সুলতান রোড, যোগীনগর রোড ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক (জয়কালী মন্দির থেকে বলধা গার্ডেন)। এদিকে ইনার রোডগুলো হচ্ছে: লারমিনি স্ট্রিট, হেয়ার স্ট্রিট, ওয়্যার স্ট্রিট, র‌্যাংকিং স্ট্রিট ও নবাব স্ট্রিট।

ওয়ারী এলাকায় লকডাউন বাস্তবায়ন কর্তৃপক্ষ দক্ষিণ সিটি করপোরেশনকে সহযোগী হিসেবে সাহায্য করছে পুলিশ।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ওয়ারী বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) শাহ ইফতেখার আহমেদ বলেন, সাধারণত লকডাউন এলাকায় প্রবেশপথ এবং বর্হিপথগুলো যাতে নিরাপদ থাকে এ বিষয়ে আমরা তাদের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করবে। লকডাউন চলাকালে ওই এলাকার মানুষ যাতে ঘরে থাকে অপ্রয়োজনে বের না হয় সেটা নিশ্চিত পুলিশের টহল টিম, মোবাইল টিম ও পেট্রোল টিম কাজ করবে। এছাড়াও পুরো এলাকায় পুলিশের কুইক রেসপন্স টিমও কাজ করবে। ঢাকা জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশন ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে সমন্বয় করেই পুলিশ সদস্যরা কাজ করছে।

গত ৩০ জুন বিকেলে দক্ষিণ সিটির নগর ভবনে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ওয়ারী লকডাউনের ঘোষণা দিয়ে জানান, ৪ জুলাই ভোর ৬টা থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ওয়ারী এলাকা লকডাউন করা হবে। ২৫ জুলাই পর্যন্ত মোট ২১দিন লকডাউন কার্যকর থাকবে। এ সময়ে এখানে সার্বিকভাবে সবকিছুই বন্ধ থাকবে, শুধু ওষুধের দোকান খোলা থাকবে।