চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস উপসর্গ নিয়ে দিনাজপুরে একজনের মুত্যু

করোনাভাইরাস উপসর্গ নিয়ে দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় মঙ্গলবার ভোরে আজিজার (৩৫) নামে এক ব্যক্তির মুত্যু হয়েছে। এনিয়ে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ ও প্রশাসনে ব্যাপক তোলাপাড় চলছে। তাৎক্ষনিকভাবে বিরামপুরের ভারতীয় সীমান্তবর্তী  কাটলায় শৌলান গ্রামটি লকডাউল করে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

দিনাজপুর জেলা সিভিল সার্জন ডা.আব্দুল কুদ্দুস জানিয়েছেন, মূলত আজিজার রহমান যক্ষ্মা উপসর্গ নিয়ে কয়েকদিন আগে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। তার জ্বর,কাশি ও শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে করোনার লক্ষণ অনুমান করে পরে কর্তব্যরত চিকিসকরা তাকে গতকাল সোমবার আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করতে চায়। কিন্তু তার আগেই রোগী কৌশলে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান।

বিজ্ঞাপন

আজ সকালে আজিজারের মৃত্যু সংবাদ জানতে পারে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ। মৃত আজিজার রহমানের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি আছে কি না তা পরীক্ষার জন্য তার শরীরের নমুনা নিয়ে ইতোমধ্যে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও করোনাভাইরাসের উপস্থিতি আছে কি না তা পরীক্ষার জন্য জেলার ১২৩ জনের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে। ইতোমধ্যে ৬৯ জনের নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে।

জেলা সিভিল সার্জন জানান, গত ২৪ ঘন্টায় ৬৭ জনসহ এখন দিনাজপুরে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন, ৭৯৯জন। আর এ পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে ৭৯৩ জন এবং আইসোলেশন থেকে ৪জন অব্যাহতি পেয়েছেন।

করোনাভাইরাসের সংক্রামন ঝুঁকি এড়াতে সরকারিভাবে লকডাউন ঘোষণা করা না হলোও কার্যতঃ দিনাজপুর অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে।গণবিজ্ঞপ্তি’র মাধ্যমে দিনাজপুর জেলা প্রশাসান যান চলাচলের উপর বিধিনিষেধ আরোপ করেছেন। সন্ধ্যা ৬টার পর ঘরের বাইরে বের না হওয়ার জন্য বলা হয়েছে।ওষুধের দোকান ছাড়া সব ধরনের দোকান-পাট,সাপ্তাহিক হাট বন্ধ এবং শুধু কাঁচাবাজার ও মুদিও দোকান দুপুর একটা পর্যন্ত খোলা থাকার নিদের্শ জারি হয়েছে। কিন্তু,অনেকে মানছেনা ওই বিধি নিষেধ।অবাধে রাস্তায় চলাচল,পাড়া-মহল্লায় আড্ডাবাজী চলছে। চলছে,যান বাহন। সামাজিক দূরত্ব মানছেনা অনেকেই।