চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: বিশ্ববাজারে চায়ের দাম বাড়ার শঙ্কা

বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের প্রভাব পড়েছে চা রপ্তানিতেও। বিশ্ববাজারে চাহিদা বাড়লেও উৎপাদন ও রপ্তানি সম্ভব হচ্ছে না। ফলে বৃদ্ধি পাচ্ছে মূল্য। লকডাউনের কারণে বাগানগুলোতে চা উৎপাদন অনেকক্ষেত্রেই বন্ধ। যার প্রভাব পড়ছে চায়ের বিশ্ববাজারে।

চা রপ্তানিতে শীর্ষ দেশগুলো তাই হুমকিতে রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিশ্ববাজারের মোট ৮২ শতাংশ চায়ের চাহিদা মেটায়- চীন, ভারত, কেনিয়া, শ্রীলঙ্কা এবং ভিয়েতনাম। কিন্তু চায়ের পাতা তোলার মৌসুম পেরিয়ে গেলেও লকডাউনের কারণে তারা তা তুলতে পারছে না। যার প্রভাব পড়তে পারে বিশ্ববাজারে।

বিজ্ঞাপন

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে চা ভূমিকা রাখে বলে চায়ের চাহিদাও বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে উৎপাদন নষ্ট হওয়ায় বাড়তে পারে দাম।

চীনে গেল বছরের শীতের তুলনায় এ বছরে তাপমাত্রা কম থাকায় প্রভাব পড়েছে উৎপাদনে। চীন বিশ্বের শীর্ষ চা উৎপাদনকারী দেশ। উৎপাদনে দ্বিতীয় সারিতে থাকা ভারত ও শ্রীলংকাতেও আশানুরূপ উৎপাদন হয়নি।

ইন্টারন্যাশনাল টি কমিটি আশঙ্কা করছে গত বছরের তুলনায় ভারতে ১২০ মিলিয়ন কেজি চা উৎপাদন হ্রাস পাবে। যা প্রায় ৯ শতাংশ কম। শিল্প সংশ্লিষ্টদের হিসাবে গেল বছরগুলোর তুলনায় এ বছরের মার্চ পর্যন্ত ভারত থেকে চা রপ্তানি ৩৪ শতাংশ কমে গেছে। শ্রীলংকায় কমেছে অর্ধেক। কেনিয়ার অবস্থাও ভালো নয়।

আর তাই বিশ্ববাজারে চায়ের দাম বৃদ্ধি পেতে পারে বলে আগাম হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তারা।