চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাকে সম্পূর্ণ নিষ্ক্রিয় করতে ‘কার্যকর এন্টিবডি’ উদ্ভাবন

যুক্তরাষ্ট্রের পিটসবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব মেডিসিনের (ইউপিএমসি) গবেষকরা করোনাভাইরাসকে পুরোপুরি নিষ্ক্রিয় করতে পারে এমন কার্যকর এন্টিবডির খোঁজ পেয়েছেন।

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এমন কিছু ক্ষুদ্রতম জৈবিক অণুকে বিচ্ছিন্ন করতে সক্ষম হয়েছেন যা সার্স কোভ-২ ভাইরাস ও কোভিড-১৯ ভাইরাসকে সম্পূর্ণ ও নির্দিষ্টভাবে নিরপেক্ষ করতে সক্ষম।

বিজ্ঞাপন

গত সোমবার ‘সেল’ সাময়িকীতে এই সংক্রান্ত গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে।

গবেষকরা বলছেন, তাদের খোঁজ পাওয়া এন্টিবডি পূর্ণ এন্টিবডির তুলনায় ১০ গুণ ক্ষুদ্র। এটি ব্যবহার করে তারা এবি-৮ নামের একটি ওষুধ তৈরি করতে পেরেছেন। এই ওষুধই ভাইরাস প্রতিরোধে চিকিৎসায় কাজে লাগতে পারে।

তারা আরও জানিয়েছেন, ওষুধটি এরইমধ্যে ইঁদুরের ওপর প্রয়োগে সাফল্য পাওয়া গেছে, সংক্রমণ রোধ এবং চিকিৎসা করার ক্ষেত্রে কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে। এছাড়াও মানুষের দেহে  প্রয়োগে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখাবে না বা মানুষের কোষের সঙ্গে আটকে যাবে না।

বিজ্ঞাপন

গবেষক দল দাবি করছে, তাদের উদ্ভাবিত এন্টিবডি করোনাভাইরাসকে পুরোপুরি ও বিশেষভাবে প্রতিরোধ করতে পারে, যা আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করবে এবং সুস্থদের করোনা আক্রান্ত থেকে সুরক্ষা দেবে।

পিটসবার্গ বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইউপিএমসির সংক্রামক রোগ বিভাগের প্রধান ও গবেষণা নিবন্ধের সহ-লেখক জন মেলর্স বলেন, এবি-৮ কেবল কোভিড-১৯–এর চিকিৎসা হিসেবেই নয়, এটি সার্স-কোভ-২ এর সংক্রমণ থেকেও সুরক্ষা দিতে সক্ষম।

গবেষণা নিবন্ধের সহযোগী লেখক ছিলেন পিটসবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক জিয়াংলেই লিউ।

‘আমাদের আশা যে, এটি কোভিড-১৯ রোগীদের এবং সংক্রমিত ও যারা কখনো সংক্রমিত হননি তাদের উভয়ের চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা যাবে।’

গবেষকেরা আরও বলছেন, তাদের সন্ধান পাওয়া ওষুধ বিকল্প চিকিৎসা পদ্ধতিতেও ব্যবহার করা যাবে। যার মধ্যে ইনহেলার বা প্লাস্টিক প্যাঁচের মতো পদ্ধতিও রয়েছে।

তাদের বিশ্বাস, বিশ্বব্যাপী যেভাবে করোনাভাইরাসে ধুঁকছে মানুষ, এই ওষুধটি তা থেকে উত্তরণে যুগান্তকারী অবদান রাখতে সক্ষম হবে।