চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাকালে নার্সিং পেশায় বলিউড অভিনেত্রী

গত বছরের মার্চে ভারতে লকডাউন দেয়া হয়েছিল। থেমে গিয়েছিল সব সিনেমার শুটিং। কাজ হারিয়েছিলেন বহু বলিউড শিল্পী। তবে শিখা মালহোত্রার দম ফেলার সময় ছিল না। কারণ বলিউডের এই শিল্পী করোনাকালে কাজ করেছেন ফ্রন্ট লাইনার হিসেবে।

২০১৬ সালে শাহরুখ খানের সঙ্গে কাজ করেছেন শিখা। ২০২০ সালের ‘কাঞ্চলি’ ছবির মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। লকডাউন দেয়ার ঠিক দুই দিন পর শিখা মালহোত্রা স্বেচ্ছাসেবী নার্স হিসেবে মুম্বাইয়ের বালাসাহেব ঠাকরে হাসপাতালে কাজ করা শুরু করেন। আগে থেকেই নার্সিং ডিগ্রী থাকায় এই কাজ পেতে খুব একটা কষ্ট হয়নি ২৫ বছর বয়সী এই বলিউড শিল্পীকে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

শিখা বলেন, ‘আমি প্রথমে একজন নার্সিং অফিসার, এরপর একজন অভিনেত্রী। জীবন, মৃত্যু, আবেগ, অনুভূতি, সুখ, দুঃখ আমাকে বদলে দিয়েছে। হঠাৎ করেই যেন আরও বেশি পরিণত হয়ে গিয়েছি।’

করোনাকালে ভারতে যেই শহরগুলো সবচেয়ে বেশি ভুগেছে, তার মাঝে মুম্বাই অন্যতম। হাসপাতালে নার্সিং অফিসার হিসেবে নানা বয়সের মানুষকে সেবা দিয়েছেন শিখা। কিন্তু সাত মাস কাজ করার পর নিজেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। এক মাস হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়েছে তাকে। সুস্থ হওয়ার পর স্ট্রোক করেন, প্যারালাইজড হয়ে যায় শরীরের ডান পাশ।

বর্তমানে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছেন শিখা। তিনি মনে করেন বাবা-মায়ের সেবা না পেলে সুস্থ হয়ে ওঠা সম্ভব হতো না। আল জাজিরা