চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কফিলউদ্দিন হত্যা: মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত তিন আসামির সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন

প্রায় দেড় যুগ আগে নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড়ের হাজী কফিল উদ্দিন হত্যা মামলায় মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত তিন আসামির সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

বিজ্ঞাপন

যে তিনজনকে মৃত্যুদন্ড থেকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে তারা হলেন-ইকবাল হোসেন, কাজী জয়নাল ও জাকির হোসেন হাজী। এছাড়া যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত জামানকে খালাস দিয়েছেন সর্বোচ্চ আদালত। আসামিদের আপিলের শুনানি শেষে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ আজ এই রায় দেন। আদালতে আসামিপক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আবদুর রেজাক খান, মুনসুরুল হক চৌধুরী, নজরুল ইসলাম চৌধুরী, আবদুল ওদুদ ভুইয়া ও সারোয়ার আহমেদ। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন শুনানিতে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এই মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, হাজী কফিলউদ্দিন সুপার মার্কেটের মালিক কফিলউদ্দিনকে ২০০৩ সালের ১৬ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় গুলি করে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনায় দুই দিন পর ১৮ ডিসেম্বর ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন নিহতের স্ত্রী আম্বিয়া খাতুন। সে মামলার বিচার শেষে ২০০৯ সালের ১৫ জুলাই নারায়নগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত ৪ জনকে মৃত্যুদন্ড এবং ১২ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়ে রায় দেন। বিচারিক আদালতে রায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তদের ডেথ রেফারেন্স অনুমোদনের জন্য হাইকোর্টে আসে। অন্য আসামিরা রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন। এসব বিষয় শুনানি শেষে হাইকোর্ট মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত চার আসামির মধ্যে ইকবাল হোসেন, জাকির হোসেন হাজী ও কাজী জয়নালের মৃত্যুদন্ড বহাল রাখেন। আর জামানের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেন। এছাড়া বিচারিক আদালতে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত সকল আসামিকে খালাস দেন হাইকোর্ট। এরপর হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আপিল করেন সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা। সে আপিলের ওপর শুনানি শেষে হাইকোর্টে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত তিনজনের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও হাইকোর্টে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে খালাস দিয়ে রায় দেন সর্বোচ্চ আদালত।