চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কনওয়ের রেকর্ডকাব্য থামল ২০০ রানে

অভিষেকে সেঞ্চুরিতে আগেরদিনই ইতিহাস গড়ে বসেছিলেন, পরেরদিন সেটিকে নিয়ে গেলেন আরও কয়েকধাপ উচ্চতায়। শেষপর্যন্ত ডাবল সেঞ্চুরি দিয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লর্ডস টেস্টে অভিষেক রাঙিয়েছেন ডেভন কনওয়ে। নিউজিল্যান্ডকে এনে দিয়েছেন শক্ত ভিত।

বৃহস্পতিবার সিরিজের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয়দিন ৩ উইকেটে ২৪৬ রানে শুরু করা নিউজিল্যান্ড অলআউট হয়েছে ৩৭৮ রানে। যার ২০০ রানই কনওয়ের। কিউই ওপেনার ১৩৬ রানে অপরাজিত থেকে দিন শুরু করে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফিরেছেন ২২ চার ও এক ছক্কা দিয়ে। ছক্কাটি মেরেই ডাবল ছুঁয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

কনওয়ের আরেক অপরাজিত সঙ্গী হেনরি নিকোলস ৪৬ রানে দিন শুরু করে ৬১ করে থেমেছেন। বাকিদের মধ্যে নিল ওয়াগনারের অপরাজিত ২৫ বলার মতো রান। কনওয়ে ও নিকোলস জুটি ১৭৪ রানে যেয়ে বিচ্ছিন্ন হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

টেস্টের ময়দানে পা রাখার দিনেই কনওয়ে অপরাজিত ইনিংসটি দিয়ে একাধিক রেকর্ড স্পর্শ করেছিলেন। লর্ডসে ১৩৭ বছরের ইতিহাসে তার ইনিংসটি অভিষেকে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহ। আবার অভিষেকে ডাবল সেঞ্চুরি, লর্ডসে তো বটেই, ইংল্যান্ডের মাটিতেই প্রথম কোনো অভিষিক্ত ব্যাটসম্যানের থেকে এলো এমন কীর্তি।

টেস্ট অভিষেকে ১২তম কিউই হিসেবে সেঞ্চুরির কীর্তি ২৯ বছর বয়সী বাঁহাতি কনওয়ের। তবে নিউজিল্যান্ডের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে লর্ডসে অভিষেকে সেঞ্চুরির খোঁজ পান। সেটিকে দুইশতে টেনে টেস্ট ইতিহাসে অভিষেকে ডাবল ছোঁয়া সপ্তম ব্যাটসম্যান হলেন। আর নিউজিল্যান্ডের ম্যাথু সিনক্লেয়ারের পর দ্বিতীয়। সিনক্লেয়ার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অভিষেকে ২১৪ করেছিলেন।

কনওয়েময় ইনিংস থেকে ৪ উইকেট তুলে ইংল্যান্ডের সেরা অলি রবিনসন। ৩টি উইকেট নিয়েছেন মার্ক উড, ২টি জেমন অ্যান্ডারসনের। স্টুয়ার্ট ব্রড থাকেন উইকেটশূন্য।

বিজ্ঞাপন