চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘কথা কম কাজ বেশি’ নীতিতে কি সবাই চলতে পারবেন?

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর মন্ত্রিসভায় চমক দেখিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরই ধারাবাহিকতা এখনও লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সর্বশেষ রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনের কথায় বিষয়টি আবারও সামনে এসেছে।

রোববার রেল মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ‘কথা কম কাজ বেশি, এই নীতিতে চলবেন’ বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী। একইসঙ্গে নিজের দুর্বলতা ঢেকে না রেখে সবার সহযোগিতায় সঠিকভাবে নিজের কাজ করে যাবেন বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি। রেলমন্ত্রী বলেছেন: ‘যাত্রীসেবার মান বৃদ্ধিই হবে তার প্রধান অঙ্গীকার।’

Advertisement

আমরা ইতিপূর্বেও দেখেছি যে, নতুন কোনো মন্ত্রী দায়িত্ব পেলে চমকের কথা বলেছেন। কিন্তু পরবর্তীতে আর তা বাস্তবায়ন হয়নি। কিন্তু এবারের মন্ত্রীদের কথাগুলো সেরকম হবে না বলেই আমরা আশা করি। কারণ, মন্ত্রীদের এসব কথাকে আমরা ‘কথার কথা’ ভাবছি না, বরং তাদের বক্তব্যকে আমরা দেশকে এগিয়ে নিতে আমূল পরিবর্তনের আভাস হিসেবে দেখছি।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে নিকট অতীতেও অনেক মন্ত্রীকেই কাজের চেয়ে বেশি কথা বলতে দেখা গেছে। এর বদলে নতুন মন্ত্রীদের এ ধরনের মানসিকতাকে আমরা সাধুবাদ জানাই। আমরা মনে করি, জনগণের জন্য একাগ্রচিত্তে কাজ করে গেলে তাদেরকে বেশি কথা বলতে হয় না। বরং তার কাজই জনগণের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এক্ষেত্রে অনন্য উদাহরণ।

রেলমন্ত্রীসহ এবারের আরও বেশ কয়েকজন মন্ত্রীর মানসিকতা আমাদের কাছে ইতিবাচক বলেই মনে হয়েছে। আমরা আশা করি, তারা সবসময় এ মানসিকতাকে লালন করবেন। তাদের পাশাপাশি অন্য সকল জনপ্রতিনিধিকে বেশি কথার বদলে প্রকৃতপক্ষে জনগণের সেবায় নিয়োজিত রাখতে আমরা আহ্বান জানাচ্ছি।