চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এবার কঠিন কিছু বলবো, কিন্তু সহজভাবে: আদনান আল রাজীব

ওয়েব ফিল্ম ‘ইউটিউমার’ নিয়ে আদনান আল রাজীব

৯০ মিনিটের বেশি দৈর্ঘ্যের ওয়েব ফিল্ম ‘ইউটিউমার’কে স্যাটায়ার ধর্মী কাজ বললেন আদনান আল রাজীব

জনপ্রিয় বিজ্ঞাপন নির্মাতা আদনান আল রাজীব প্রথমবারের মতো ওয়েব ফিল্ম বানাচ্ছেন। দেশীয় ওটিটি প্লার্টফর্ম চরকির জন্য নির্মিতব্য ওয়েব ফিল্মটির নাম ‘ইউটিউমার’।

বর্তমানে পুরোদমে চলছে এর শুটিং। যেখানে অভিনয় করছেন জিয়াউল হক পলাশ ও কণ্ঠশিল্পী প্রীতম হাসান। শিল্পী তালিকায় রয়েছে আরও চমক। কিন্তু নির্মাতা এখনই ঘোষণা করতে চাইলেন না। বৃহস্পতিবার চ্যানেল আই অনলাইনকে আদনান বললেন, ৪০ শতাংশ শুটিং ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সহকারী হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু আদনানের। এরপর দেশ ও দেশের বাইরে বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন নির্মাণ করে মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন, কুড়িয়েছেন প্রশংসাও, হয়েছেন আলোচিত। নির্দেশনা দিয়েছেন নাটকও।

উচ্চতর পদার্থ বিজ্ঞান (পার্ট ২), প্রশ্নবোধক, পার্শ্ববর্তী প্রেম নিবেদন, মিডিল ক্লাস সেন্টিমেন্ট এবং বিকেল বেলার পাখির মত জনপ্রিয় নাটক নির্মাণ করেছেন আদনান। তার অ্যাট এইটটিন : অল টাইম দৌড়ের উপর এর মাধ্যমে প্রথম অভিনয়ের সুযোগ পান তৌসিফ মাহবুব ও শবনম ফারিয়া।

২০১৭ সালের ঈদে ‘বিকেল বেলার পাখি’ নাটক দিয়ে নির্মাতা হিসেবে ব্যাপকভাবে প্রশংসা অর্জন করেন আদনান।

বিজ্ঞাপন

৯০ মিনিটের বেশি দৈর্ঘ্যের ওয়েব ফিল্ম ‘ইউটিউমার’কে স্যাটায়ার ধর্মী কাজ বললেন আদনান আল রাজীব। তার কথা, কোনো কিছু বলতে চাইলে গল্পের মাধ্যমে প্রকাশের চেষ্টা করি। এবার মনে হয়েছে, কঠিন কিছু বলবো কিন্তু সহজভাবে। তাই এবারের আইডিয়া ‘ইউটিউমার’। বেসিক গল্প হচ্ছে ‘স্যাটায়ার’। পুরোপুরি লাউড হিউমার, যেখানে হাসি ঠাট্টা থাকবে; সেই সঙ্গে গল্প আগাবে।

তিনি বলেন, পলাশ এবং প্রীতম ওয়ান অব দ্য লিড কাস্ট। তারা দুজনেই ব্রিলিয়ান্ট। প্রীতমের চরিত্রের পাশাপাশি মানুষ হিসেবে খুব ভালো। পলাশের চরিত্র খুব ফান এবং কাজ করে মজা পাচ্ছি। আরও চরিত্রগুলো ধীরে ধীরে জানা যাবে।

‘ইউটিউমার’র গল্প আদনান আল রাজীবের নিজের। চিত্রনাট্য করেছেন আদনান ও তার টিমের দুই সহকারী সাদিয়া ইসলাম রোযা ও নুহাশ। আদনান বলেন, নির্দিষ্ট শ্রেণীর দর্শকদের জন্য বানানো হচ্ছে না। গল্পটা বলতে চাচ্ছিলাম তাই বানাচ্ছি। তাছাড়া অনেকদিন হাসিঠাট্টার কিছু করিনা। দেখাতে চাই, নিজের মধ্যে কতটুকু হাসিঠাট্টা জমা আছে। মূলত এজন্যই বানাচ্ছি। আগে শুটিং শেষ করি। তারপর পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ করতে হবে। রিলিজ দিতে হয়তো একটু সময় লাগবে।

চারদিকে ওটিটি’র জোয়ার বইছে। বৈশ্বিক বড় বড় প্লাটফর্মের দিকে মানুষ বেশি ঝুঁকছেন। আদনান মনে করেন, আগামী দুই বছর হবে ওটিটি এগিয়ে যাওয়ার সেরা সময়। অন্যান্য দেশে ওটিটি ব্যবহারে মানুষ অভ্যস্ত। বাংলাদেশে কম সংখ্যক মানুষ অভ্যস্ত কিন্তু আগামিতে আরো বেশি অভ্যস্ত হবে।

ওটিটির সম্ভাবনা নিয়ে এই নির্মাতা আরো বলেন, দেশের প্লাটফর্মগুলো মজার সব প্রজেক্ট নিয়ে আগাচ্ছে। সমানভাবে আমরা যদি এখানে কাজ করি তাহলে ওটিটি এগিয়ে যাওয়ার আরও সুযোগ রয়েছে। এখানে দর্শক ভালো কনটেন্ট গল্প ও ভিজুয়াল চান। ওভারঅল দেখতে সিনেম্যাটিক হতে হবে। ইউটিউবের নাটক বা টেলি ছবি থেকে বেরিয়ে নতুন কিছু দেখতে চায়। সবমিলিয়ে আমার মনে হয় আগামিতে ওটিটির ভালো সম্ভাবনা রয়েছে।