চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এখনো বেতন পাননি ৩ লাখেরও বেশি পোশাক শ্রমিক

নির্ধারিত সময় ১৬ এপ্রিলের মধ্যে তৈরি পোশাক খাতের ৮৭ শতাংশ শ্রমিক মার্চ মাসের বেতন পেয়েছেন। যা সংখ্যার দিক থেকে ২১ লাখ ৫৯ হাজার ১০০ জন। বাকি ১৩ শতাংশ বা ৩ লাখ ১৩ হাজার ৩১৭ জন শ্রমিক এখনো বেতন পাননি।

বৃহস্পতিবার তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারকদের সংগঠন- বিজিএমইএ এ তথ্য জানায়।

বিজ্ঞাপন

বাকি শ্রমিকরা ২০ এপ্রিলের মধ্যে বেতন পাবেন বলে জানায় সংগঠনটি। যদিও এর আগে বিজিএমইএ জানিয়েছিল, ১৬ এপ্রিলের মধ্যে বেতন সবার বেতন পরিশোধ করা হবে।

বিজ্ঞাপন

বিজিএমইএর সদস্যভুক্ত কারখানাগুলোর হিসাবই দিয়েছে সংগঠনটি। এর বাইরের কারখানাগুলোর তথ্য জানা যায়নি।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিজিএমইএ জানিয়েছে, বিজিএমইএর সদস্য ২ হাজার ২৭৪ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১ হাজার ৬৬৫টি প্রতিষ্ঠান শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করেছে। অর্থাৎ ৭৩ শতাংশ প্রতিষ্ঠান শ্রমিকদের মার্চের বেতন পরিশোধ করেছে। এছাড়া ঢাকার ৯৭ এবং চট্টগ্রামের ১১৯ প্রতিষ্ঠানের বেতন পরিশোধ প্রক্রিয়াধীন।

বিজ্ঞাপন

এর আগে গতকাল বুধবার (১৫ এপ্রিল) বিজিএমইএ থেকে জানানো হয়, ২ হাজার ২৭৪ কারখানার মধ্যে ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় রয়েছে ৩৭২টি। যার মধ্যে মার্চের বেতন দিয়েছে ২০১ প্রতিষ্ঠান। গাজীপুরের ৮১৮ কারখানার মধ্যে বেতন দিয়েছে ৪৩২টি, সাভার আশুলিয়ায় ৪৯১টির মধ্যে বেতন দিয়েছে ২৪৩, নারায়ণগঞ্জে ২৬৯ পোশাক কারখানার মধ্যে বেতন দিয়েছে ১১৮, চট্টগ্রামের ৩২৪ কারখানার মধ্যে ১৫৬ এবং প্রত্যন্ত এলাকার ৪২টি গার্মেন্টসের মধ্যে ৩৬ গার্মেন্টসের মালিকরা মোট ১৯ লাখ ১৯ হাজার ৬০০ শ্রমিকের বেতন পরিশোধ করেছেন।

বিপরীতে বুধবার পর্যন্ত এক হাজার ৮৮টি কারখানার শ্রমিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করেননি মালিকরা।

বেতন না পেয়ে করোনাভাইরাসের এ দুর্যোগকালীন সময়েও মার্চ মাসের বেতন-ভাতার দাবিতে প্রতিদিনই রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ করছেন গার্মেন্টস শ্রমিকরা।

বৃহস্পতিবারও রাজধানীর মিরপুর, কমলাপুর ও বিমানবন্দর এলাকায় বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন কয়েকশ শ্রমিক।

এ পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন এক বিবৃতিতে জানায়, ১৬ এপ্রিলের মধ্যে সব পোশাক শ্রমিকের মার্চ মাসের বেতন-ভাতা পরিশোধের নির্দেশ দিয়েছিল সরকার। কিন্তু এখনও ৩০ শতাংশ শ্রমিক মার্চ মাসের বেতন-ভাতা পায়নি।

সংগঠনটির সভাপতি আমিরুল হক আমিন এ বিবৃতিতে বলেন, প্রায় ৩০ শতাংশ পোশাক শ্রমিক আজও মার্চ মাসের বেতন-ভাতা পেল না। অথচ ১৬ এপ্রিলের মধ্যে সব গার্মেন্টসে বেতন-ভাতা পরিশোধের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন শ্রম প্রতিমন্ত্রী। এমনকি যেসব মালিক ১৬ এপ্রিলের মধ্যে বেতন-ভাতা পরিশোধ করবে না, তাদের কারখানার লাইসেন্স নবায়ন না করাসহ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারিও দিয়েছিলেন প্রতিমন্ত্রী। কিন্তু সরকারের নির্দেশ অমান্য করে মালিকরা বেতন-ভাতা পরিশোধ করেননি।