চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কাজাখস্তানে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে এক সপ্তাহে নিহত ১৬৪

Nagod
Bkash July

কাজাখস্তানে গত সপ্তাহ থেকে চলমান সহিংসকর পরিস্থিতিতে এখন পর্যন্ত ১৬৪ জন মারা গেছে। দেশটির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের বরাতে বিবিসি এ তথ্য জানিয়েছে।

Reneta June

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানায়, নিহতদের মধ্যে ৩ শিশুও রয়েছে। দেশটির সবচেয়ে বড় শহর ও সরকারবিরোধী বিক্ষোভের কেন্দ্রস্থল আলমিতি শহরে ১০৩ জন নিহতের কথা জানিয়েছে কাজাখস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

প্রেসিডেন্ট অফিসের সূত্রে বিবিসি বলছে, এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৬ হাজার জনকে আটক করা হয়েছে।

কাজাখস্তানে গত ৩০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ সহিংসকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। দেশটিতে জ্বালানী তেলের মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা পরে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে রূপ নেয়। ফলে দেশব্যাপী বিপুল বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে।

পরবর্তীতে বিক্ষোভ দমনে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর পাশাপাশি রাশিয়ার সহায়তা চান প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ। সেই ধারাবাহিকতায় বিক্ষোভ দমনে গত সপ্তাহে রাশিয়ান সেনাবাহিনীও মাঠে নামানো হয়। দেশটিতে বর্তমানে রাশিয়ার ২ হাজার ৫০০ সেনা অবস্থান করছে। মস্কো জানিয়েছে, কালেক্টটিভ সিকিউরিটি ট্রিটি অর্গানাইজেশন (সিএসটিও)’র অধীনে কাজাখস্তানে সেনা পাঠানো হয়েছে।

রাশিয়ান সেনাদলের সহায়তায় বিক্ষোভের শহর আলমিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় সরকার। সোমবার থেকে শহরটিতে যান চলাচলের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সুলতান গামালেতদিনোভ দ্য গার্ডিয়ানকে জানিয়েছেন, ‘সন্ত্রাস বিরোধী অপারেশন’ ততক্ষণ চলবে যতক্ষণ পর্যন্ত পুরোপুরিভাবে তাদের দমন করা না যায়। দেশটিতে সাংবিধানিক শৃঙ্খলা পুনরুদ্ধার করা হবে।

গণবিক্ষোভ সামাল দিতে প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ শুক্রবার কঠোর পদক্ষেপের ঘোষণা দেন। কোনো সতর্কীকরণ ছাড়াই সৈন্যদের গুলি চালানোর নির্দেশ দেন তিনি। তোকায়েভ বলেন, কাজাখস্তানের সবচেয়ে বড় শহর আলমাটির ওপর ২০ হাজার ‘সন্ত্রাসী’ হামলা চালায়।

কাজাখস্তানে সৃষ্ট সহিংস পরিস্থিতিতে রাশিয়ার সৈন্যের উপস্থিতি ও গুলি করে হত্যার বিষয়টিকে কঠোর সমালোচনা করে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেন, গুলি করে হত্যার সিদ্ধান্তটি ভুল এবং এটিকে বাতিল করতে হবে।

গত রোববার জ্বালানী তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে দেশব্যাপী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

দেশটির পুরো পরিস্থিতি এখন স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছে সরকারের দপ্তর। তবে এখনও পর্যন্ত ‘সন্ত্রাসী’ দমনে সেনা দল মাঠে রাখা হবে বলে জানায় প্রেসিডেন্ট কার্যালয়। কাজাখস্তানে কারফিউ জারি রয়েছে।

BSH
Bellow Post-Green View