চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ বাংলাদেশের

সাকিব-তামিমের ব্যাটে রান

এক ম্যাচ হাতে রেখেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ নিজেদের করে নিল বাংলাদেশ। মিরপুরে ছোট লক্ষ্য সহজে পেরিয়েছে তামিম ইকবালের দল। ৭ উইকেটের জয়ে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে টানা তিন সিরিজ জয়ের স্বাদ পেল টিম টাইগার্স।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ-১৪৮/১০ (৪৩.৪ ওভার), বাংলাদেশ-১৪৯/৩ (৩৩.২ ওভার)

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয়টিতে ১৪৯ রানের ছোট লক্ষ্যে বাংলাদেশ পৌঁছায় ৩৩.২ ওভারে ৩ উইকেট খরচায়। ওপেনার তামিমের ব্যাটে এসেছে ফিফটি। সাকিব আল হাসান খেলেছেন ৪৩ রানের অপরাজিত ইনিংস। তাতে সহজ লক্ষ্য হয়ে যায় আরও সহজ।

খর্বশক্তির উইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জয় প্রত্যাশিতই ছিল। এবার ক্যারিবীয়দের হোয়াইটওয়াশ করার হাতছানি সাকিব-তামিমদের সামনে। তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে সোমবার, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে।

বিজ্ঞাপন

জিম্বাবুয়ে ছাড়া অন্যকোনো দলের বিপক্ষে অতীতে টানা তিন সিরিজ জয়ের স্বাদ পায়নি বাংলাদেশ। এবার নতুন চেহারার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পেয়ে অন্যরকম হ্যাটট্রিক করে ফেলল তামিমের দল।

২০১৮ সালের জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে স্বাগতিকদের ২-১এ সিরিজ হারায় বাংলাদেশ। ওই বছরের ডিসেম্বরে ঘরের মাঠেও ২-১এ সিরিজ জিতে নেয় মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার দল। এবার তামিমের নেতৃত্বে পূর্ণ হল ষোলোকলা।

ব্যাট হাতে জ্বলে ওঠার আগে বল হাতেও দুর্দান্ত ছিলেন সাকিব। ১০ ওভারে ৩০ রানে নেন দুটি উইকেট। অলরাউন্ড নৈপুণ্য দিয়ে আবারও ম্যাচসেরার দাবিদার হয়ে উঠেছিলেন।

যদিও ৪ উইকেট তুলে ক্যারিবীয়দের ব্যাটিংলাইনে ধস নামানো মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে উঠেছে পুরস্কারটি। এ অফস্পিনার ৯.৪ ওভারে দেন মাত্র ২৫ রান।

ফের বোলারদের জ্বলে ওঠার দিনে উইন্ডিজ ৪৩.৩ ওভারে গুটিয়ে যায় ১৪৮ রানে। সর্বোচ্চ ৪১ রানের ইনিংস খেলেন রোভম্যান পাওয়েল। ৮৮ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে ফেলা দলটি ১০০ পার করতে পারবে বলে মনে হচ্ছিল না। তাদের শেষ দুই ব্যাটসম্যান আলঝারি জোসেফ ১৭ ও আকিল হোসেন ১২ রান করলে দেড়শর খুব কাছে গিয়ে থামে উইন্ডিজ।