চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এক ডজন প্রিয় সিনেমা

প্রিয় সিনেমা:

ঘরে বসে দেখুন দেশ-বিদেশের সিনেমা:

আমি এমনিতেই একটু ঘরমুখো মানুষ। কাজ না থাকলে সময়টা আমি ঘরে কাটাতেই পছন্দ করি। আর সে সময়টায় সিনেমা আর বই আমার নিত্য সঙ্গী। ফলে করোনাকালে আলাদা করে কোনো সিনেমা দেখছি এমন নয়। আমার সিনেমা দেখতে ভাল লাগে তাই দেখি। সব ধরনের, যেকোন ভাষার।  ফলে খুবই মুশকিল পছন্দের ছবির একটা তালিকা করা। আরও মুশকিল তালিকাটাকে ৫টা এমনকি ১০টা ছবিতে সীমাবদ্ধ রাখা।

চ্যানেল আই অনলাইনের ‘প্রিয় সিনেমা’-বিভাগের অনুরোধে তাই একটু ঝামেলায় পড়ে গেলাম। কিন্তু অনুরোধ ফেলাতো কঠিন। তাই অনেক চিন্তা ভাবনা করে একটা তালিকা করেই ফেললাম। তবে ছবির নয়, এই তালিকাটা মূলত এখনও কাজ করে চলেছেন এমন নির্মাতাদের। কিন্তু তাদের মধ্যেও পছন্দের  ১০ জন বেছে নেয়া খুব কঠিন। আমি বাধ্য হয়ে বেছে নিয়েছি ১২ জনকে।  এই ১২ জন নির্মাতা যাঁদের নতুন কাজ দেখার জন্যে আমি সব সময় উন্মুখ হয়ে থাকি।

বিজ্ঞাপন

তাঁদের মধ্যে যেমন অপেক্ষাকৃত নবীন নির্মাতা আছেন আবার আছেন অশীতিপর নির্মাতাও।  আমার পছন্দের এই ছবিগুলো তাঁদের সেরা বা প্রতিনিধিত্বমূলক কাজ কোন মতেই বলা যাবে না। আমার কাছে এই ছবিগুলোর গুরুত্ব সম্পূর্ণই ব্যক্তিগত এবং ব্যাখ্যাতীত।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু একটা ছোট ব্যাখ্যা জরুরী। শেষের ২ জন অনেকদিন ধরেই কোন কাজ করছেন না। কিন্তু সেই যুক্তিতে এদুটো ছবিকে তালিকা থেকে বাদ দেয়া সম্ভব হলো না। যাইহোক অনেক ব্যাখ্যা শেষে আমার একডজন:

অ্যা সেপারেশন: আসগর ফারহাদি

দ্য সন: দারদেনে ব্রাদার্স

সুইট সিক্সটিন: কেন লোচ

মেমোরিজ অব মার্ডার: বং জুন হো

ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন আনাতোলিয়া: নুরি বিলগে

কিল বিল: কোয়াইন্টিন টারান্টিনো

অল অ্যাবাউট মাই মাদার: পেদ্রো আলমোদোভার

দ্য গ্রেট বিউটি: পাওলো সোরেয়েন্টিনো

দ্য রিটার্ন: আন্দ্রে পেট্রোভিচ 

রেইজ দ্য রেড ল্যানটার্ন: ঝ্যাং ইমু

ইন দ্য মোড ফল লাভ: ওয়াংকার ওয়াই

স্পিরিটেড অ্যাওয়ে: হ্যাওয়ে মিয়াজাকি

লেখক: চলচ্চিত্র সংগঠক ও নির্মাতা