চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘এক্সট্র্যাকশন’র মতো অ্যাকশনের সুযোগ আগে পাইনি: রণদীপ হুদা

বলিউড অভিনেতা রণদীপ হুদা জানিয়েছেন ‘এক্সট্র্যাকশন’ ছবিতে তার চরিত্রটি একেবারেই ভিন্ন ধরনের। কোনো হিন্দি ছবিতে এধরনের কাজের সুযোগ হয়নি আগে। নিজেকে ভেঙে নতুন করে গড়তে হয়েছে তার।

ছবিতে রণদীপ হুদার চরিত্রের নাম সাজু। কিছুদিন আগে প্রকাশিত ট্রেলারে রণদীপ হুদা ও ক্রিস হেমসওর্থের ছুরি নিয়ে লড়াই করার একটি দারুণ অ্যাকশন দৃশ্য দেখা গেছে।

বিজ্ঞাপন

রণদীপ হুদা জানান, অ্যাকশন ছবিতে কাজের অভিজ্ঞতা তার ভাল লেগেছে। ভবিষ্যতেও এধরনের আন্তর্জাতিক ছবিতে কাজ পেলে তিনি করতে আগ্রহী।

বিজ্ঞাপন

রণদীপ বলেন, ‘চিত্রনাট্যে এই চরিত্রটিকে রেকিং বল বলা হয়েছে। আমার চরিত্রটি ছবিতে ক্রিস হেমসওর্থ এবং অন্য চরিত্রগুলোর মাঝে সংযোগ স্থাপন করে।’

ছবিতে গাড়ি চালাতে হয়েছে রণদীপ হুদাকে। অস্ত্রও চালাতে হয়েছে। করতে হয়েছে হাতাহাতির লড়াই। প্রথমে কঠিন মনে হলেও পরে এই চরিত্রে ঢুকে গিয়েছিলেন রণদীপ।

ক্রিস হেমসওয়ার্থের এই সিনেমার নাম প্রথমে ছিল ‘ঢাকা’। পরে নাম পাল্টে দেয়া হয়েছে ‘এক্সট্র্যাকশন।’ ২৪ এপ্রিল থেকে নেটফ্লিক্সে পাওয়া যাবে ছবিটি।

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাকে ঘিরে সাজানো হয়েছে ছবির কাহিনী। মুম্বাইয়ের এক গ্যাংস্টারের ছেলেকে অপহরণ করে ঢাকায় আটকে রাখে বাংলাদেশের এক গ্যাংস্টার। সেই ছেলেকে ঢাকা থেকে উদ্ধার করতে আনা হয় একজন মার্সেনারি ক্রিস হেমসওয়ার্থকে। চলে একের পর এক অভিযান।

হলিউডের সবচেয়ে দাপুটে ভাতৃদ্বয় জো রুশো ও অ্যান্থনি রুশো ছবিটি প্রযোজনা করেছেন। ক্রিস হেমসওয়ার্থ এবং রণদীপ হুদা ছাড়াও অভিনয় করেছেন হলিউডর ডেভিড হারবার, ডেরেক লুকের মতো তারকা।

‘ঢাকা’ সিনেমার শুটিং এর বেশ কয়েকটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পর জানা যায় ভারতের আহমেদাবাদ এবং থাইল্যান্ডের ব্যাংকক শহরে ছবিটির দৃশ্যধারণ করা হয়েছে। শুটিং এর জন্য ঢাকার আদলে বানানো হয় ছোট্ট একটি শহরও। ‘ঢাকা’ ছবির বেশ কিছু দৃশ্য বাংলাদেশেও ধারণ করা হয়েছে।