চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

একশপের উদ্যোগে ফ্রন্টলাইনার হিসেবে করোনা টিকা পাবেন ইভ্যালি কর্মীরা

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম একশপের উদ্যোগে কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের টিকা পেতে যাচ্ছে দেশিয় ই-কমার্স মার্কেটপ্লেস ইভ্যালির কর্মীরা।

ইভ্যালির পাশপাশি ফ্রন্টলাইনার হিসেবে দেশের ইকমার্স খাতে কর্মরত প্রায় ছয় হাজার কর্মী এই টিকা গ্রহণের সুযোগ পাবে।

বুধবার রাজধানীর ধানমণ্ডিতে ইভ্যালির প্রধান কার্যালয়ে টিকা গ্রহণের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে কর্মীদের অনলাইন নিবন্ধন শুরু হয়।

প্রতিষ্ঠানটির মানবসম্পদ ও প্রশাসন বিভাগের পরিচালক সাবরিনা নাসরিন, প্রথম নিবন্ধক হিসেবে নিবন্ধন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এসময় একশপের প্রতিনিধিরা ‘সুরক্ষা’ প্ল্যাটফর্মে নিবন্ধনের প্রক্রিয়াগুলো তুলে ধরেন।

এবিষয়ে একশপ কর্তৃপক্ষ জানায়, করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হবার ঝুঁকি নিয়ে ই-কমার্স খাতের ফ্রন্টলাইন কর্মীরা প্রতিদিন নিত্যপ্রয়োজনীয় এবং জরুরি পণ্যের সরবরাহ অব্যাহত রেখেছে। তাই তাদের স্বাস্থ্যের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে এবং সংক্রমণের ঝুঁকি হ্রাসের জন্য আইসিটি বিভাগের এটুআই প্রকল্পের একশপ ইউনিটের সমন্বয় সহায়তায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক ৬০০০ ই-কমার্স কর্মীকে ভ্যাকসিন রেজিস্ট্রেশনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এবিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য ইউনিটের প্রধান ডা. শাহ আলি আকবর আশরাফী বলেন। “ই-কমার্স ইন্ডাস্ট্রির কর্মীরা করোনা মহামারীকালীন সময়ে ঘরে ঘরে পণ্য পৌঁছে দিয়েছেন। এটুআই এর উদ্যোগে ই-কমার্স খাতের কর্মীদের কোভিড-১৯ টিকা দেওয়ার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

সুরক্ষা ওয়েব পোর্টালে নিবন্ধনের মাধ্যমে কর্মীরা টিকা নিতে পারবেন। এই উদ্যোগ ই-কমার্স খাতকে আরো গতিশীল করবে।

গত বছর সাধারণ ছুটির সময় এবং রেড জোনে লোকডাউনের সময়ও একশপ পুরো দেশের ইকমার্স ইন্ডাস্ট্রিকে কোর্ডিনেশন ও লজিস্টিক সাপোর্ট দিয়ে গেছে। এর ধারাবাহিকতায়ই ফ্রন্টলাইন কর্মীদের টিকা দেওয়ার এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে ক্যাম্পেইন পরিচালনায় সহায়তা করছে ব্লাডম্যান।

এ বিষয়ে ইভ্যালির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন বলেন, গত বছর যখন লকডাউন হলো তখন সাধারণ ভোক্তা ও গ্রাহকদের কাছে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য পৌঁছে দিতে ই-কমার্সের চাহিদা ও গুরুত্ব আমাদের সবার সামনে ভেসে ওঠে। এই কাজটিকে যারা সম্পন্ন করেন তারা হচ্ছেন ইকমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো কর্মীরা, আমাদের কর্মীরা। তাই তারা সম্মুখসারীর যোদ্ধা।

ইতোমধ্যে সরকার ই-কমার্সকে জরুরি সেবার আওতাভুক্ত করেছে। এই সেবার যোদ্ধাদের একটি বড় অংশ গ্রাহকদের কাছে গিয়ে তাদের পণ্য ডেলিভারি করে। তাই তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করাও আমাদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। তারই অংশ হিসেবে এক শপের উদ্যোগে আমাদের কর্মীদের টিকা নেওয়ার বিষয়টি আমরা নিশ্চিত করছি। ইভ্যালি একটি পরিবারের মতো, আমরা চাই আমাদের পরিবারের সকল সদস্য সহ সবাই যেন সুস্থ থাকে।

বিজ্ঞাপন