চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

একটি জয়ের আশায় বাংলাদেশ

সাকিব আল হাসান ফিরেছেন। চোট কাটিয়ে তাসকিন আহমেদও আছেন অপেক্ষায়। দলের শক্তি বেড়েছে অনেক। অধিনায়ক মুমিনুল হক শেষ টেস্টে তাই ভালো কিছুর আশায়।

চট্টগ্রামে ৮ উইকেটে জিতে সিরিজে এগিয়ে পাকিস্তান। ঘুরে দাঁড়াতে না পারলে টি-টুয়েন্টির পর টেস্ট সিরিজেও হোয়াইটওয়াশ হবে বাংলাদেশ।

শনিবার সকাল দশটায় শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের শেষ টেস্ট শুরু। ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল জানালেন, জয়ের জন্যই লড়বে তার দল।

‘অবশ্যই (জয়), কেনো না। আমার কাছে টেস্ট ম্যাচে সবসময় প্রথম একঘণ্টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যদি ব্যাট করি, ওরা যদি করে, যেই করুক। আমরা যদি একটা ভালো শুরু করি তাহলে ভালো।’

‘সবাই জানে আমাদের শক্তির জায়গা হল ব্যাটিং। ব্যাটিং শক্তিতে আমরা যদি ছয় সেশন ব্যাট করতে পারি, তাহলে গেমে ফিরতে পারব। অবশ্যই (জয়) আশা করি। কেউ তো ম্যাচ হারার জন্য নামে না। জেতার জন্যই নামে।’

অলরাউন্ডার সাকিব ফেরায় বাড়তি একজন ব্যাটার বা বোলার খেলাতে পারবে বাংলাদেশ। এটা নিয়ে অধিনায়কও আছেন স্বস্তিতে, ‘সাকিব দলে আসলে একটু সহজ হয়। এখন পর্যন্ত তার সবকিছু ঠিকঠাক আছে, ঠিকঠাক দেখেছি। ও আসায় আমরা ৪ বোলার ৭ ব্যাটসম্যান নিয়ে চিন্তা ভাবনা করছি।’

বিজ্ঞাপন

‘সাকিব ফেরাতে ক্যাপ্টেন হিসেবে আমি নির্ভার থাকি। তার ব্যাটিং-বোলিং খুব গুরুত্বপূর্ণ। টিম কম্বিনেশনে তার থাকাটা আমাদের জন্য ইতিবাচক দিক।’

টাইফয়েডের কারণে পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট থেকে ছিটকে গেছেন সাইফ হাসান। সাদমান ইসলাম শনিবার মিরপুরে পেতে চলেছেন নতুন ওপেনিং পার্টনার। মুমিনুল জানালেন, ডানহাতি-বাঁহাতি নামানোর সম্ভাবনাই বেশি।

তেমন হলে বাংলাদেশের ৯৯তম টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে ডানহাতি মাহমুদুল হাসান জয়ের অভিষেক হয়ে যাবে সিরিজের শেষ ম্যাচে। টেস্ট ক্যাপ মাথায় তোলার অপেক্ষা বাড়বে বাঁহাতি নাঈম শেখের।

চট্টগ্রাম টেস্টের দলেও ছিলেন জয়। বেশ কয়েকটি ব্যাটিং সেশন করেছেন। নেটে তাকে দেখে আত্মবিশ্বাসীই মনে হচ্ছিল। ম্যাচ খেলার সুযোগ হয়নি তরুণ ব্যাটারের। ওপেনিং করেন বাঁহাতি সাদমান ও ডানহাতি সাইফ।

অসুস্থ হয়ে পড়ায় সাইফের জায়গায় নাঈমকে ডাকা হয় দ্বিতীয় টেস্টের দলে। ওপেনিং পজিশন নিয়ে মুমিনুল বললেন, ‘ওপেনিং কম্বিনেশন বাঁহাতি-ডানহাতি হতে পারে। দুইজন বাঁহাতিও হতে পারে। তবে বাঁহাতি-ডানহাতি হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।’

অন্যদিকে শেষটাও জয়ে রাঙাতে চায় পাকিস্তান। সফরকারী দলের পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদি বললেন, ‘মোমেন্টাম খুব ভালো আছে, দলের কম্বিনেশন দারুণ। ছেলেরা প্রস্তুত দ্বিতীয় টেস্টের জন্য। অবশ্যই লড়াই করব এবং ভালোভাবে শেষ করব, এখান থেকে সিরিজ জিতে ফিরব।’

বিজ্ঞাপন