চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

একটানা জীবনেও এতোদিন ঘরে থাকিনি: ইমরান

করোনাকালে শিল্পীর দিনযাপন:

করোনাভাইরাসের কারণে সবাই ঘরবন্দি। ব্যতিক্রম নয় জনপ্রিয় সংগীত তারকা ইমরান মাহমুদুল। গত ২০ মার্চ থেকে চ্যানেল আই সেরা কণ্ঠের এ শিল্পী তার ধানমন্ডির বাসায় আছেন।

চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে আলাপে ইমরান জানান, তিনি একদমই বাসা থেকে বের হচ্ছেন না। প্রায় ৪৪ দিন তিনি তার ফ্ল্যাটে রীতিমত নিজেকে বন্দি করে রেখেছেন। বললেন, ‘এমনকি দরজা থেকে বের হইনা, বাসার লিফটেও উঠিনা। বাসার মধ্যেই স্টুডিও সেখানেই সময় কাটে। সিনেমা দেখি, টিভিতে খবর দেখি।’

বিজ্ঞাপন

ইমরান বলেন, ‘রোযা রাখছি, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ছি। আগে কনসার্ট, রেকর্ডিং(প্লে-ব্যাক) ব্যস্ততার কারণে বিভিন্ন জায়গায় ছুটে বেড়াতে হতো। এখন পুরোপুরি বিশ্রাম পাচ্ছি। এতে ভীষণ স্বস্তি লাগছে। পরিরবাকে প্রচুর সময় দিতে পারছি। আগে তো ঘুম থেকে উঠেই বেরিয়ে যেতাম। রাত করে ঘরে ফিরতে হতো। কিন্তু এখন সারাদিন সবাই একসঙ্গে থাকছি। পরিবারের কাজে নিজেকে রাখতে পারছি।’

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘লম্বা সময় ধরে বাসায় থাকতে পারছি বলেই নতুন নতুন অনেক কাজ করছি। আগে বিভিন্ন কোম্পানির কাজ থাকতো সেগুলো করতে হতো। প্লে-ব্যাক থাকতো। নিজের জন্য কাজ কম করা হতো। এখন এমন কিছু কাজ করছি সেগুলো একেবারে নিজের জন্য। প্রচুর অনুশীলন করতে পারছি। নিজের কাজগুলো সময় নিয়ে করতে পারছি। দেশের পরিস্থিতি ভালো হলে এই কাজগুলো নিয়ে হাজির হতে পারবো।’

আগের বছরগুলোর রমজান বাদে অন্য সময় কনসার্টের ভরা মৌসুম থাকতো। শুধু দেশের মধ্যে নয় গিটার, মাইক্রোফোন এবং ব্যান্ডদল ‘আই কিংস’ নিয়ে ইমরান চষে বেড়াতেন ইউরোপ, আমেরিকা, মধ্যপ্রাচ্যে। তার কনসার্টে মেতে উঠতেন প্রবাসীরা। চলতি বছরেও ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছিলো কনসার্ট।

ইমরান বলেন, ‘করোনাভাইরাসে সব কনসার্ট বাতিল হয়েছে। ৪ এপ্রিল অস্ট্রেলিয়ার সিডনি শো ছিল, বাতিল হয়েছে। এছাড়া বেলজিয়ামসহ আরও কয়েকটি দেশে শো ছিল। গত বৈশাখে দেশের ১৫ টির বেশি শো বাতিল হয়েছে। এছাড়া আগামী ঈদে হয়তো আরও কিছু শো করতে পারতাম। পাশাপাশি ‘মুজিব বর্ষ’ থাকায় আরো কিছু শো ছিল কিন্তু করোনার কারণে সব বাতিল হয়েছে।’

করোনার এই খারাপ দিনগুলো কাটিয়ে আবার নতুন দিনের প্রত্যাশায় বুক বেঁধে আছেন ইমরান। সংকটের এই দিনগুলো কাটানোর জন্য তিনি নিজে সচেতন থাকছেন বলেই ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। ইমরান তার ভক্তদেরও সুস্থ থাকার জন্য সচেতন থাকতে বলছেন। সরকারি দিকনির্দেশনাগুলো মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন এ গায়ক।