চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

উদ্দাম পার্টি থামবে না নেইমারের

মাঠের বাইরে সবসময়ই আলোচনায় থাকতে ভালোবাসেন নেইমার। বলা ভালো, তার উদ্দাম জীবনই তাকে অন্যরকম আলোর নিচে নিয়ে আসে বারবার। নিজের জন্মদিন, বড়দিন, উপলক্ষ পেলেই জমকালো পার্টিতে মেতে ওঠেন পিএসজির ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার। নিজের কর্মকাণ্ড দিয়ে মনে করিয়ে দেন তিনি বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার।

২০১৭ সালে ২২২ মিলিয়ন ইউরোয় নেইমারকে বিশ্বের দামি ফুটবলার বানিয়ে দলে টানে ফরাসি ক্লাব পিএসজি। ক্লাবটির হয়ে ১০০ ম্যাচে ৮৩ গোল করে দামের যথার্থতা প্রমাণ করেছেন ২৮ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড। ইতিহাসে প্রথমবারের মতো পিএসজিকে তুলেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে।

বিজ্ঞাপন

মাঠের পারফরম্যান্সের মতোই ব্যক্তিগত জীবনে সমান উজ্জ্বল নেইমার। বিতর্ক আর জমকালো জীবন নিয়ে মেতে থাকতে ভালোবাসেন। উপলক্ষ পেলেই আয়োজন করেন পার্টির!

গত বছর নিজের জন্মদিনে সতীর্থ আর রঙিন পর্দার তারকাদের নিয়ে দিয়ে বসেন পার্টি। ম্যাচের আগে যে পার্টির কথা শুনে বিরক্ত হয়েছিলেন পিএসজির সাবেক কোচ টমাস টুখেল। করোনার মাঝেও ১৫০ জন নিয়ে বড়দিনের পার্টি করেছেন। যা নিয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছিলেন প্রতিবেশীরা।

এসব কর্মকাণ্ড, নারী ঘটিত কাণ্ড মিলিয়ে পিএসজিকে বেশ কয়েকবার বিব্রতকর অবস্থায়ও ফেলেছেন নেইমার। বিরক্ত হয়ে তাকে ‘অপরিপক্ব’ বলেছেন কেউ কেউ। এসব সমালোচনাকে মোটেও পাত্তা দিতে রাজি নন ব্রাজিলিয়ান তারকা। যার যা ইচ্ছা বললেও পার্টি করা থামবে না বলেই ইএসপিএনকে জানিয়েছেন।

‘পার্টি করতে কে ভালোবাসে না? সবাই আনন্দ করতে ভালোবাসে। জানি আমাকে কখন কোথায় যেতে হবে, কী করতে হবে, কী করতে হবে না। যখন লোকে আমাকে বলে আমি বোধহীন, তখন ভেবে পাই না তাহলে আমাকে কী করতে হবে?’

‘অনেকদিন থেকেই ফুটবল খেলছি। যদি কেউ শতভাগ ফুটবল নিয়ে বসবাস করে, আমার মতে তার শেষটা হবে বিস্ফোরণ দিয়ে। এখন আমার সময় আরাম করা, শান্ত থাকা, আমি এটা কখনই করা থামাবো না।’

বিজ্ঞাপন