চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

উইঘুর মুসলিমদের ওপর চীনের আচরণ গণহত্যার সমান: কানাডা

উইঘুর ইস্যুতে কানাডার পার্লামেন্টে চীনের বিরুদ্ধে একটি প্রস্তাব পাস হয়েছে।

সোমবার এই প্রস্তাবটি পাস হওয়ার পর বলা হয়েছে শিনজিয়াং অঞ্চলে বসবাসকারী মুসলিম উইঘুর সংখ্যালঘুদের সঙ্গে চীনের আচরণ গণহত্যা হিসেবে চিহ্নিত।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ব্রিটিশ সংবাদসংস্থা বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিরোধী কনজারভেটিভ পার্টি চীনের বিরুদ্ধে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সরকারকে গণহত্যার মামলা পরিচালনা করার জন্য বলেছেন।

পার্লামেন্টে বিরোধী কনজারভেটিভ পার্টির আনা এই প্রস্তাবটি ২৬৬-০ ভোটে কানাডার হাউস অফ কমন্সে পাস হয়েছে। তবে, ট্রুডো এবং তার মন্ত্রিসভা ভোটদানে বিরত ছিলেন, যদিও অন্যরা এটিকে ব্যাপকভাবে সমর্থন দিয়েছেন।

কানাডার পার্লামেন্ট ২০২২ সালের শীতকালীন অলিম্পিক বেইজিং থেকে সরিয়ে নিতে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

উইঘুর ইস্যুতে ট্রুডোকে রক্ষণশীল প্রতিদ্বন্দ্বীরা চীনকে আরও কঠোরভাবে চাপ দিতে বলেছেন।

তবে, শিনজিয়াংয়ে কখনোই কোনো গণহত্যা, বাধ্যতামূলক শ্রম ও ধর্মীয় নিপীড়নের ঘটনা ঘটেনি বলে দাবি করেছে বেইজিং।

উইঘুরদের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের সাক্ষ্য, দলিল ও গণমাধ্যমের প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি দিয়ে কনজারভেটিভ দলের আইনজীবী মাইকেল চং বলেন, আমরা আর এটিকে উপেক্ষা করতে পারি না। আমাদের এটিকে অবশ্যই বলা উচিত ‘গণহত্যা’।

ট্রুডো গণহত্যা শব্দটি ব্যবহারে অনিচ্ছুক এবং তিনি পরামর্শ দিয়েছেন যে চীনা মানবাধিকার ইস্যুতে পশ্চিমা মিত্রদের মধ্যে বিস্তৃত বাড়ানোয় হবে সর্বোত্তম পন্থা।

এদিকে, দেশটির এক সরকারি সূত্র জানিয়েছে, ট্রুডো ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মঙ্গলবার বিকেলে ভার্চুয়াল দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন এবং এসময় চীনের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়ে আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।