চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইস্পাহানি মির্জাপুর-চ্যানেল আই বাংলা খেয়াল উৎসবের অষ্টম আসর শুরু

ভাষার মাসকে কেন্দ্র করে প্রতিবছরের মতো এবারও বসলো শাস্ত্রীয় সংগীতের বড় আয়োজন ‘ইস্পাহানি মির্জাপুর-চ্যানেল আই বাংলা খেয়াল উৎসব ২০২১’। এবারের উৎসব উৎসর্গ করা হয়েছে বাংলা খেয়ালের জনক, সংগীতজ্ঞ প্রয়াত আজাদ রহমানকে।

রবিবার চ্যানেল আই স্টুডিওতে বাংলা খেয়াল উৎসবের উদ্বোধন করেন চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ, সংগীত শিল্পী ফেরদৌস আরা, আজাদ রহমানের স্ত্রী সেলিনা আজাদ, ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন ইস্পাহানি টি লিঃ এর মহাব্যবস্থাপক ওমর হান্নান প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

করোনার কারণে সীমিত পরিসরে বাংলা খেয়াল উৎসব হচ্ছে বলে জানান শাইখ সিরাজ। প্রয়াত আজাদ রহমানের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে ও তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে তিনি বলেন, মানুষের অনুপ্রেরণা ও শক্তি বাংলা খেয়াল উৎসবকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। যারা শাস্ত্রীয় সংগীত অনুরাগী এবং আগামীর প্রজন্মের কাছে শাস্ত্রীয় সংগীতের বুনিয়াদ যাদের শক্তিশালী হয় সেজন্য খেয়াল উৎসব আগামীতে অনেক বেশি ভূমিকা পালন করবে।

ইস্পাহানি টি লিঃ এর মহাব্যবস্থাপক ওমর হান্নান বলেন, এমন চমৎকার আয়োজনের সঙ্গে থাকতে পেরে আমরা গর্বিত। যতদিন এই অনুষ্ঠান হবে, ইস্পাহানি চ্যানেল আইয়ের সঙ্গে থেকে কাজ করবে। সবসময় অনুষ্ঠানটির সাফল্য কামনা করি।

বিজ্ঞাপন

সংগীত শিল্পী ফেরদৌস আরা বলেন, করোনাকালেও বাংলা খেয়ালের মতো বড় কাজ সাবধানতা মেনে করছে চ্যানেল আই। এজন্য মন থেকে এর সঙ্গে জড়িতদের জানাই ভালোবাসা। বাংলা খেয়ালের ভাবনায় ছিলেন আজাদ রহমান। তিনি আমাদের মাঝে নেই। তবে তার জন্য অনেক অনেক শ্রদ্ধা ও শান্তি কামনা করছি।

সেলিনা আজাদ বলেন, এবার বাংলা খেয়াল হবে কিনা সেটা নিয়ে চিন্তিত ছিলাম। কিন্তু চ্যানেল আই বরারবের মতো এগিয়ে এসেছে। প্রয়াত আজাদ রহমান চলে যাওয়ায় আমাদের মাঝে যে শোক, সেই শোককে শক্তিতে পরিণত করতে হবে। আগামীতেও বাংলা খেয়াল চলতে থাকুক এই কামনা করি।

উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে আজাদ রহমানকে শ্রদ্ধা জানিয়ে একটি প্রামাণ্য প্রতিবেদন প্রদর্শন করা হয়। শুদ্ধ সংগীতকে নিয়ে আগামী যে প্রজন্ম বেড়ে উঠছে তাদের বুনিয়াদ যাতে আরও শক্তিশালী করতে বাংলা খেয়ালের এই উৎসব আরও বড় ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে সংগীতের বিশিষ্টজনরা।

৩১ জানুয়ারি বিকেল ৫টা ২০ মিনিট থেকে শুরু হয়ে এটি চলবে ১ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টা পর্যন্ত।

বিজ্ঞাপন