চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইরফানের ৭৫, সুমনের ৫ উইকেট

নাজমুল হোসেন শান্ত একাদশ ৬৪ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসায় ফাইনালের উত্তাপ টের পাওয়া যাচ্ছিল না। সেখান থেকে একাই লড়ে যান ইরফান শুক্কুর। তুলে নেন দারুণ এক ফিফটি। শেষ পর্যন্ত আউট হন ৭৫ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলে।

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে শান্ত একাদশ ১৭৩ রান তুলেছে। ১৭ বল আগেই সবকটি উইকেট হারায় তারা। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একাদশ জয়ের লক্ষ্যটা নাগালে রাখতে পেরেছে সুমন খানের দুর্দান্ত বোলিংয়ে। তরুণ পেসার ৩৮ রানে শিকার করেন ৫ উইকেট।

বিজ্ঞাপন

রুবেল হোসেন দুই উইকেট তুলে ছুঁয়েছেন তামিম ইকবাল একাদশের সাইফউদ্দিনকে। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি (১২) এ দুই পেসার। ফাইনালে নামার আগে রুবেলের উইকেট ছিল দশটি।

বিজ্ঞাপন

ইবাদত হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ নেন একটি করে উইকেট।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে একে একে সাইফ হাসান (৪), মুশফিকুর রহিমের (১২), সৌম্য সরকার (৫), আফিফ হোসেনের (০) উইকেট হারায় শান্ত একাদশ। ৪৫ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বসা দলের হাল ধরেন অধিনায়ক। তৌহিদ হৃদয়কে নিয়ে চেষ্টা করেন বিপর্যয় সামাল দেয়ার।

শান্ত নিজেই উইকেট বিলিয়ে আসলে চেষ্টা ব্যর্থ হয়। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ৩২ রান করে লংঅনে ক্যাচ দেন। পুরো টুর্নামেন্টে দারুণ ব্যাটিং করা ইরফান নেমেই মারমুখী ভূমিকায় অবতীর্ণ হন। হৃদয়ের সঙ্গে ষষ্ঠ উইকেটে ৭০ রানের জুটিতে তাদের দল পায় দুইশর পথে হাঁটার রাস্তা।

যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের ব্যাটসম্যান হৃদয় ২৬ রানে করে আউট হন। ইরফান শেষ পর্যন্ত টিকে থাকলে হয়ত দুইশ ছুঁয়ে ফেলত শান্ত একাদশ। ১৭ বল আগেই রুবেলের বলে স্কুপ করতে গিয়ে বোল্ড হন। ৭৫ রানের ইনিংসটি খেলেন ৭৭ বলে। মারেন ৮টি চার ও ২টি ছয়।