চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইরফানের গতিতে ঘাবড়ে গিয়েছিলেন কোহলি!

যুগে যুগে বিশ্বমানের পেসার উপহার দিয়ে এসেছে পাকিস্তান। ইমরান খান থেকে শুরু করে হালের মোহাম্মদ আব্বাস, ব্যাটসম্যানের নাভিশ্বাস তুলে দেয়ার মতো পেসারের কখনোই অভাব হয়নি দেশটির ক্রিকেটাঙ্গনে।

যদিও একটা দিক থেকে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ান পেসারদের চেয়ে পিছিয়ে ছিলেন পাকিস্তানি পেসাররা, সেটা উচ্চতায়। পাশ্চাত্যের লম্বা ব্যাটসম্যানদের জন্য যে উচ্চতায় বাউন্স তোলা প্রয়োজন, কেবল সেদিকে খানিকটা খামতি ছিল তাদের।

বিজ্ঞাপন

অভাবটা পূরণ করেছিলেন মোহাম্মদ ইরফান। ৭ ফুট উচ্চতার এ পেসার ক্যারিয়ারের শুরুতে বেশ কৌতূহলের জন্ম দিয়েছিলেন। এমনকি তার উচ্চতা আর গতিতে নাকি ঘাবড়ে গিয়েছিলেন ভারতের বর্তমান অধিনায়ক ও বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলিও।

পাকিস্তানি উপস্থাপক সাভেরা পাশার ইউটিউব চ্যানেলে এক সাক্ষাৎকারে ইরফান জানিয়েছেন, তার বিষয়ে কোহলিকে শুরুতে ভুল ধারণা দেয়া হয়েছিল। পরে মাঠে এসে ভুলটা বুঝতে পারেন ভারত অধিনায়ক এবং মুখেও ইরফানকে জানিয়েছেন যে, তার সম্পর্কে কোহলিকে ভুল ধারণা দিয়েছেন কোচ।

বিজ্ঞাপন

‘প্রথমবার যখন ভারত সফরে যাই, তখন ভারতীয় ক্রিকেটাররাই আমাকে জানিয়েছিল তাদের কোচিং স্টাফরা নাকি তাদের বলেছে আমি ১৩০-১৩৫ কিলোমিটার গতির বেশিতে বল করতে পারবো না।’

‘এমনকি কোহলিও আমাকে বলেছিল তাদের কোচ তাকে বলেছে আমি খুব বেশি জোরে বল করতে পারবো না। ব্যাপারটা হচ্ছে আমি খুব লম্বা আর কয়েকটা বাউন্সই দিতে পারবো, কিন্তু কোহলির জন্য সেটা কোনো ব্যাপার না।’

কোহলির ধারণা পাল্টে দিয়ে ১৫০ কিলোমিটার গতিতে বল করে বেশ চমকেই দিয়েছিলেন বলে জানাচ্ছেন ইরফান, ‘কোহলি মাঠে নামার আগে প্যাড পরে বসেছিল। এমন সময় সে দেখল আমি ১৪৫ কিলোমিটার বেগে বল করেছি। সে প্রথমে মনে করল স্পিডগানে বোধহয় কোনো সমস্যা। পরে আবারও ১৪৭ গতিতে বল করলাম। সে আমাকে পরে বলেছে যে কোচকে জিজ্ঞেস করেছে ‘‘হয় আপনি আমাকে মিথ্যা বলেছেন, নয়তো স্পিডগানে কোনো সমস্যা আছে!’’

‘পরে কোহলি আমাকে সামনাসামনি বিষয়টা বলেছে। যখন ১৪৮ কিলোমিটার বেগে বল করলাম, তখন সে সবচেয়ে কাছের কোচকে অপমান করে বলেছে, ‘‘এ কেমন মিডিয়াম পেসার যে ১৫০ কিলোমিটার বেগে বল করে!’’