চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইন্দোনেশিয়ার ছোট ছোট কক্ষে গাদাগাদি করে থাকত দুইশো বাংলাদেশি

মালদ্বীপ, ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়ায় অভিযানে আটক তিন শতাধিক বাংলাদেশি

ইন্দোনেশিয়ার একটি ছোট দোতলা ভবনের ছোট ছোট কক্ষের ভেতর গাদাগাদি করে অনাহারে-অর্ধাহারে থাকা ২০০ জনের মতো বাংলাদেশি নাগরিককে আটক করেছে দেশটির পুলিশ।

মালদ্বীপ, ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়ায় সাম্প্রতিক অভিযানের অংশ হিসেবে এদের আটক করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অভিযানে দেশগুলোতে আটক অবৈধ অভিবাসীদের মধ্যে বাংলাদেশি হিসেবে এ পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছে ২৯৬ জনের বেশি।

ইন্দোনেশিয়ায় সামনে দোকান থাকা ছোট একটি দোতলা ভবনের ভেতর থেকে গাদাগাদি করে থাকা ১৯২ জন বাংলাদেশিকে বের করে আনতে সফল হয় পুলিশ। দেশটির সুমাত্রা দ্বীপে অবস্থিত মেদান শহরে ভবনটির প্রতিবেশীদের কাছ থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার এ অভিযান চালিয়েছিল পুলিশ।

পুলিশের ধারণা, টানা বেশ কয়েক মাস ধরে এরা ওই বাসাটিতে লুকিয়ে বসবাস করছিল। কাজের আশায় প্রতিবেশী দেশ মালয়েশিয়ায় অবৈধভাবে প্রবেশের চেষ্টায় ছিল তারা।

এএফপি জানায়, আটকদের বেশিরভাগেরই বয়স ২০ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে। ভবনটিতে খাবারের অভাবও ছিল বলে জানিয়েছে তাদের অনেকে।

‘আমরা মনে করছি ওরা নৌকায় করে ইন্দোনেশিয়ায় এসেছে। তাদের কাছে কোনো কাগজপত্রও নেই,’ বলেছেন মেদানের অভিবাসন প্রধান ফেরি মোনাং সিহিতে।

মালদ্বীপের অভিবাসন কর্তৃপক্ষ কাগজপত্রবিহীন ৮০ জন বাংলাদেশি শ্রমিককে আটক করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম রাজিএমভি। চলতি বছর এটাই এ ধরনের প্রথম অভিযান। এক টুইটে মালদ্বীপ অভিবাসন কর্তৃপক্ষ জানায়, আটকস্থলে বিদেশি শ্রমিকদের কাগজপত্র যাচাই করা হয়েছে। আরও যাচাইয়ের জন্য ৮০ জনকে আটক করে নিয়ে আসা হয়েছে।

জনসাধারণের কাছ থেকে বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়ার পর এই অভিযান চালানো হয় বলে অভিবাসনের মিডিয়া কর্মকর্তা হাসান খলিল জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি জানান, ওই ৮০ জনকে আটক করার কারণ তাদের যথাযথ কাগজপত্র নেই। ফলে তাদের পরিচয় নিশ্চিত নয়।

তবে আটকরা বাংলাদেশি নাগরিক বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তাদেরকে হুলহুমালে ডিটেনশন সেন্টারে রাখা হয়েছে। তবে তাদেরকে ফেরত পাঠানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

গত জানুয়ারিতে ইমিগ্রেশন কন্ট্রোলার জেনারেল মোহাম্মদ আহমেদ হোসাইন জানিয়েছিলেন, মালদ্বীপে মোট ১ লাখ ৪৪ হাজার ৬০৭ জন বিদেশি শ্রমিক কাজ করছে। এদের মধ্যে ৬৩ হাজার জনেরই কোনো কাগজপত্র নেই।

অবৈধ অভিবাসী কমানোর জন্য ২ জানুয়ারি থেকে কর্তৃপক্ষ ‘অপারেশন স্টিংরে’ শুরু করেছে। পুরো বছর এই অভিযান চলবে বলে জানানো হয়েছে।

মালয়েশিয়ার পেনাং সেন্ট্রালে অবৈধ অভিবাসী সন্দেহে এ পর্যন্ত ৯৭৬ জন বিদেশিকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পেনাং অভিবাসন কর্মকাণ্ড বিভাগ।

বিভাগের প্রধান ইজহাম ইদ্রিস জানিয়েছেন, বুধবার সকাল ৯টা থেকে টানা পাঁচ ঘণ্টার অভিযানে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মোট ৭০ জন অবৈধ অভিবাসীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ভ্রমণের যথাযথ কাগজপত্র বা বৈধ ভিজিট পাস দেখাতে না পারাসহ ভিজিট পাসের অবৈধ ব্যবহার এবং নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বেশি অবস্থানের মতো বিভিন্ন অপরাধের অভিযোগে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার ৭০ জনের মধ্যে ২৪ জন বাংলাদেশি পুরুষ, ২৪ পুরুষ ও ৩ নারী মিয়ানমারের, ৫ নারীসহ ১০ জন ইন্দোনেশিয়ার, ভিয়েতনামের এক পুরুষ ও ৩ নারী, ৪ নেপালি পুরুষ এবং ভারতের একজন পুরুষ রয়েছে।

Bellow Post-Green View