চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইন্টারের মুখোমুখি না হওয়ায় আনন্দিত ক্লপ!

‘আমি আনন্দিত এজন্য যে আমরা প্রতি সপ্তাহে ইন্টারের মুখোমুখি হই না। তারা খুব কঠিন প্রতিপক্ষ। তারা যোদ্ধা, তারা যোদ্ধা। আমরা যেসব অসুবিধার সম্মুখীন হয়েছি, তার কাছাকাছিই আমি ধারণা করেছিলাম। সত্যিকার অর্থেই ইন্টার দারুণ দল। তারা এমন ম্যাচের জন্য আসলেই উপযুক্ত।’

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর ফিরতি লেগে ইন্টার মিলানের কাছে ১-০ গোলে হারের পর এভাবেই প্রতিপক্ষের বন্দনায় মাতেন লিভারপুল কোচ ইয়ূর্গেন ক্লপ।

Reneta June

সান সিরোতে হওয়া প্রথম লেগে ২-০ গোলে জয় পাওয়ায় দুই লেগ মিলিয়ে ২-১ ব্যবধানে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে অলরেডরা। তাই বলাই যায়, লিভারপুলের কান ঘেঁষে গুলি চলে গেছে।

বিজ্ঞাপন

এই ম্যাচে নিশ্চিত তিনটি গোলের সুবর্ণ সুযোগ হারিয়েছে লিভারপুল। মোহাম্মদ সালাহর নেয়া দুই শট ও জোয়েল মাতিপের হেড ক্রসবারে লেগে ফিরে আসায় অ্যানফিল্ডে তারা গোলের দেখা পায়নি।

বিষয়টির দিকে দৃষ্টিপাত করে ক্লপ বলেন, ‘দুর্দান্ত না খেললেও আমাদের (গোলের) পরিষ্কার সুযোগ ছিল। দুই লেগ মিলিয়ে সবকিছু ঠিক আছে। আমরা পার হয়ে গিয়েছি। আমরা এমন প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে আরও ভালো করতে পারতাম। সেটা না পারা জীবনকে অস্বস্তিকর করে তোলে।’

‘এটি সত্যিই একটি আকর্ষণীয় খেলা ছিল। শেষ পর্যন্ত আমরা খেলাটি হেরেছি, যা স্পষ্টতই দারুণ কিছু নয়। আমরা ঘরের মাঠের খেলায় হারাতে আসিনি।’

‘প্রতিপক্ষ আমাদের জন্য সমস্যা তৈরি করেছিল। কিন্তু আমরা যদি আমাদের সুযোগ কাজে লাগাতাম, তাহলে এই ম্যাচে জিততাম। আমরা অনেক সহজ বলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছি, যা ঘটতে পারে। যখন বল শুন্যে ভাসছিল, তখন এটিকে বাতাসের সঙ্গে থাপ্পড় খাওয়ার মতো মনে হচ্ছিল।’

‘পাল্টা আক্রমণ একেবারেই ছিল না। আমরা চ্যালেঞ্জ করার কাছাকাছি ছিলাম। কিন্তু চ্যালেঞ্জ করতে পারিনি। আমরা ছন্দময় গতি পাইনি, এটাই আমাদের অভাব ছিল।’