চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইতিহাস বিকৃতি: শুভঙ্কর সাহাকে তলব করেছে হাইকোর্ট

বঙ্গবন্ধুর ছবি না ছাপিয়ে ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের ইতিহাস’ বইয়ে পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আইয়ুব খান ও তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর মোনায়েম খানের ছবি ছাপানোর বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বইটির সম্পাদক শুভঙ্কর সাহাকে তলব করেছেন হাইকোর্ট।

আগামী ১২ মার্চ তাকে আদালতে স্বশরীরে উপস্থিত থেকে ব্যাখ্যা দিতে হবে।

হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত অনুসন্ধান কমিটির দেওয়া এ সংক্রান্ত এক প্রতিবেদনের উপর শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার এই আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এ বি এম আলতাফ হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আল আমিন সরকার। আর বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী যোবায়ের রহমান।

ওই বইয়ে জাতির জনকের ছবি না ছাপিয়ে ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে বলে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দাখিল করে অর্থ মন্ত্রণালয়ের গঠিত অনুসন্ধান কমিটি। প্রতিবেদনে ইতিহাস বিকৃতির দায়ে ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের ইতিহাস’ বইটি প্রকাশনার সাথে সম্পৃক্ত ছয় কর্মকর্তাকে দায়ী করে বলা হয়েছে, ‘বইটি প্রকাশের জন্য গঠিত গবেষণা কমিটি ও সম্পাদনা কমিটির কাজের মধ্যে সমন্বয়ের অভাব ছিল।’

বিজ্ঞাপন

আজকের আদেশের বিষয়ে এ বি এম আলতাফ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, হাইকোর্ট বাংলাদেশ ব্যাংকের ইতিহাস গ্রন্থের সম্পাদক শুভঙ্কর সাহাকে তলব করেছেন।

ওই গ্রন্থে বঙ্গবন্ধুর ছবি কেন নেই এবং ওই বইতে কেন মোনায়েম খান, আইয়ুব খানের ছবি ওখানে লাগানো হয়েছে। সে বিষয়ে আগামী ১২ মার্চ তাকে হাইকোর্টে ব্যাখ্যা দিতে হবে।

সেই সাথে আদালত ওই বইটির পুরনো যত কপি আছে, সেগুলো সরিয়ে ফেলতে এবং এ বইটি যেন বাজারে না ছাড়া হয় সে নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের ইতিহাস’ বই নিয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে এফবিসিসিআই পরিচালক কাজী এরতেজা হাসান এক রিট আবেদন করেছিলেন।

সে রিটের শুনানি নিয়ে বইটিতে ইতিহাস বিকৃতি হয়েছে এমন অভিযোগে গত বছরের ২ অক্টোবর এ ঘটনা তদন্তের জন্য একটি অনুসন্ধান কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এবং ৩০ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়।

সে ধারাবাহিকতায় প্রতিবেদন দাখিলের পর এ বিষয়ে শুনানি নিয়ে আদালত আজ তলব আদেশ দিলেন।

বিজ্ঞাপন