চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইউরোপে অক্সফোর্ডের টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ঘিরে জটিলতা

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার জেরে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নিয়ে তৈরি হয়েছে চরম জটিলতা। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার জেরে একে একে বুলগেরিয়া, ডেনমার্ক, আয়ারল্যান্ড, আইসল্যান্ড, নরওয়ে, ফ্রান্স, ইটালি, জার্মানির পর এবার টিকা কর্মসূচি স্থগিত করেছে সুইডেন ও লাটভিয়া।

এই প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মাথায় চিন্তার ছাপ পড়েছে। তাদের ক্রমবর্ধমান চাপের মধ্যে আরও চাপ যুক্ত হয়েছে মঙ্গলবার যখন স্থগিতের তালিকায় সুইডেন ও লাটভিয়া যুক্ত হয়। ইউরোপের বাইরের অন্তত ১৬টি দেশ ওই টিকা দেওয়া স্থগিত করে। থাইল্যান্ডও আছে এই দলে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জার্মানির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়, তাদের দেশের টিকা বিষয়ক কর্তৃপক্ষের পরামর্শক্রমে সোমবার থেকে জরুরি ভিত্তিতে তারা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দেয়া স্থগিত করেছে।

জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েন্স স্পাহন বলেন, এটা কোনো রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নয়। আমরা সবাই এই সিদ্ধান্তের পরিণতি কী হতে পারে সে সম্পর্কে খুব ভালোভাবে অবগত আছি এবং আমরা এই সিদ্ধান্তকে একদমই হালকাভাবে নিচ্ছি না।

জার্মানির টিকা স্থগিতের ঘোষণার পরপরই ঘোষণা আসে ফ্রান্সের প্রসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর। মঙ্গলবার বিকাল থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দেওয়া স্থগিতের ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, ইউরোপিয়ান মেডিসিন্স এজেন্সি (ইএমএ) থেকে নতুন পরামর্শ না আসা পর্যন্ত টিকাদান স্থগিত থাকবে। ইটালিও বৃদ্ধি করে তাদের নিষেধাজ্ঞার আওতা। একদিন আগে নেদারল্যান্ডস আগামী ‍অন্তত ২৯ মার্চ পর্যন্ত অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকাদান কার্যক্রম স্থগিত করে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে দেশগুলোকে টিকা দান স্থগিত না করার অনুরোধ করা হয়েছে।

সংস্থাটি জানায় যে, ভ্যাকসিনের সাথে রক্ত জমাট বাধার ঝুঁকির মধ্যে কোনও যোগসূত্র নেই।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞদের একটি দলের বৈঠকও করেছে। শিগগিরই তারা তাদের রিপোর্ট প্রকাশ করবে।

রয়টার্স বলছে, অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দেওয়ার পর ইউরোপে রক্ত জমাট ‍বাঁধার বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। যদিও বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সাধারণত ইউরোপে অন্যান্য সময় রক্ত জমাট বাঁধার যত ঘটনা ঘটে টিকা গ্রহণের পরও সেই সংখ্যা তেমনই আছে, বাড়েনি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পর ইউরোপীয় ইউনিয়নের মেডিসিন্স রেগুলেটর থেকেও অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার সঙ্গে রক্ত জমাট বাঁধার কোনো সম্পর্ক থাকার ইঙ্গিত নেই বলে জা‍নানো হয়েছে।

ইএমএ দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে যে, অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকায় ঝুঁকির চাইতে লাভ অনেক অনেক বেশি।

এর প্রধান এমার কুক বলেন, তারা ভ্যাকসিনের ৫ মিলিয়নের মধ্যে ৩০টির মতো অস্বাভাবিক রক্তের জমাট রিপোর্ট তদন্ত করছে। পুরো অঞ্চলে ৪৫ মিলিয়ন  ডোজ দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার তাদের রিপোর্ট প্রকাশ করবে। ঠিক কি কারণে রক্ত জমাট হয়েছে তা অনুসন্ধান করা হচ্ছে বলে জানান কুক।

যুক্তরাজ্যের মেডিসিন্স রেগুলেটর থেকেও অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার সঙ্গে রক্ত জমাট বাঁধার সম্পর্ক পাওয়া যায়নি বলে জানানো হয়েছে।

এর আগে রক্ত জমাট বাঁধা বিষয়ে অ্যাস্ট্রাজেনেকা কর্তৃপক্ষ জানায়, ইউরোপ ও যুক্তরাজ্যের এক কোটি ৭০ লাখের বেশি মানুষ তাদের টিকা নিয়েছে। তার মধ্যে মাত্র ৩৭ জনের শরীরে রক্ত জমাট বাঁধার উপসর্গ দেখা গেছে।